মুখের বদলে মুখ, তিনবার মুখ পরিবর্তন | daily-sun.com

মুখের বদলে মুখ, তিনবার মুখ পরিবর্তন

ডেইলি সান অনলাইন     ১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ১৮:৫২ টাprinter

মুখের বদলে মুখ, তিনবার মুখ পরিবর্তন

এই নিয়ে তিন বার মুখ বদল করলেন তিনি। তিন মাস ধরে ‘মুখহীন’ ছিলেন জেরোমি হ্যামন।

‘মুখ’ দাতার খোঁজ পাওয়ার পর প্যারিসের এক হাসপাতালে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে গত তিন মাস কাটিয়েছেন তিনি।

 

জানুয়ারিতে ‘ফেস ট্রান্সপ্লাট’ হওয়ার পরে এখন তাঁর ‘তৃতীয়’ মুখ নিয়ে ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে উঠছেন জেরোমি। যদিও মুখের ত্বক ও মাথার খুলির সঙ্গে সামঞ্জস্য তৈরি হতে আরও কিছুদিন সময় লাগবে।

 

‘‘প্রথমবার মুখ প্রতিস্থাপন করে সঙ্গে সঙ্গে তা মেনে নিয়েছিলাম। আমি ভেবেই নিয়েছিলাম এটাই আমার নতুন মুখ। এটাই মেনে নিতে হবে। এবারও তাই হল,’’ বলছেন জেরোমি।

 

২০১০ সালে প্রথম মুখ বদল করেন তিনি। কিন্তু সাধারণ জ্বর-সর্দি সারানোর জন্য ওষুধ খেয়েই বিপত্তি হয় জেরোমির।

ওই ওষুধের প্রতিক্রিয়ায় মুখ বদলের পুরো প্রক্রিয়ায় ব্যাহত হয়। মুখ বেঁকে যায়। মুখ তুলে ফেলতে হয়। আবার মুখ প্রতিস্থাপনের জন্য হাসপাতালে ভর্তি হতে হয় জেরোমিকে।

 

কিন্তু কেন জেরোমির মুখ বদল করতে হল? হ্যামন নিউরোফাইব্রোম্যাটোসিস টাইপ-১ জেনেটিক রোগে আক্রান্ত। এই রোগে বিকৃত টিউমার হয়। মুখও বিকৃত হয়ে যায়।

তবে মুখ প্রতিস্থাপন করতে মুখ দেওয়ার মতো কোনও দাতা না পাওয়ায় তিন মাস ধরে ‘মুখহীন’ অবস্থায় থাকতে হয় জেরোমিকে। শেষে ২২ বছর বয়সি এক যুবকের মৃত্যুর পর তাঁর মুখই জেরোমির মুখে বসানো হয়।  

 

 

ঘটনাচক্রে যে চিকিৎসক পৃথিবীর প্রথম মুখ প্রতিস্থাপন করেছিলেন, সেই লরেন্ট ল্যানতিয়েরিই জেরোমির মুখে অস্ত্রোপচার করেন।  

তৃতীয় মুখ নিয়ে জেরোমি কতদিন ঠিক থাকতে পারবেন, তা নিয়েই চিন্তিত তিনি।

 


Top