পরিচ্ছন্নতায় বিশ্ব রেকর্ড ডিএসসিসির, গিনেস বুকের স্বীকৃতির অপেক্ষা | daily-sun.com

পরিচ্ছন্নতায় বিশ্ব রেকর্ড ডিএসসিসির, গিনেস বুকের স্বীকৃতির অপেক্ষা

ডেইলি সান অনলাইন     ১৩ এপ্রিল, ২০১৮ ১৫:১১ টাprinter

পরিচ্ছন্নতায় বিশ্ব রেকর্ড ডিএসসিসির, গিনেস বুকের স্বীকৃতির অপেক্ষা

 

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে ‘পরিচ্ছন্ন ঢাকা’ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন নানা শ্রেণি পেশার হাজারো মানুষ। গিনেস বুকে নতুন রেকর্ডের লক্ষ্যে এ কর্মসূচির আয়োজন।

সব কিছু ঠিক থাকলে গিনেস বুকে পরিচ্ছন্নতার তালিকায় নাম আসবে ডিএসসিসির এমনটাই প্রত্যাশা করা হচ্ছে।


শুক্রবার (১৩ এপ্রিল) সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। সকাল সাড়ে ১০টায় কর্মসূচি শুরু হওয়ার কথা থাকলেও মেয়র আরো ৫ মিনিট সময় চেয়ে নিয়ে ১০টা ৩৫-এ কর্মসূচি শুরু করেন।


প্রতীকী পরিচ্ছন্নতায় গিনেস বুকে থাকা পূর্বের রেকর্ডের লোকসংখ্যার থেকে প্রায় দ্বিগুণ লোক অংশগ্রহণ করেছে ‘ডেটল পরিচ্ছন্ন ঢাকা’ কর্মসূচিতে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ৯ হাজার ৭০০ লোক গণনার আওতায় এসেছে বলে জানানো হয়। তবে অডিটর পিনাকী দাশ এসসিএস জানিয়েছেন, ১৫ হাজার লোকের সমাগম হবে।


ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র খোকন বলেছেন, 'রেকর্ড তো ভাইঙ্গা গেছে। নতুন রেকর্ড করেছি আমরা। ’


তবে গিনেস বুক কর্তৃপক্ষ স্বীকৃতি দিলেই বিষয়টি পূর্ণতা পাবে।


এর আগে ভারতের গুজরাটে ২০১৭ সালের ২৮ মে বদোধারা শহরের মিউনিসিপ্যাল করপোরেশন পাঁচ হাজার ৫৮ জন কর্মী নিয়ে এক কিলোমিটার রাস্তা পরিষ্কার করে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড বুকে নাম ওঠায়।


ঢাকার রেকর্ডের গণনায় রয়েছে ১০টি টিম। এই টিমের ৩ ভাগের ২ ভাগের হিসাবে ৯ হাজার ৭০০ জন।


এই কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেন, আমরা প্রত্যেকে প্রত্যেকের বাড়ির আঙ্গিনা পরিষ্কার করব। পাশাপাশি আমরা আমাদের বিবেকবোধকেও পরিস্কার রাখব।


পরিচ্ছন্নতায় বিশ্ব রেকর্ড গড়তে চৈত্র সংক্রান্তির দিনে বিশেষ এই উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি)। ডেটলের পৃষ্ঠপোষকতায় ‘ডেটল পরিচ্ছন্ন ঢাকা, সাপোর্টেড বাই ডিএমপি এন্ড পাওয়ার্ড বাই জিটিভি’ শীর্ষক এই প্রতীকী পরিচ্ছন্ন কর্মসূচি আয়োজিত হচ্ছে।


শুক্রবার সকাল ৭টা থেকেই ঢাকার বিভিন্ন এলাকা থেকে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শিক্ষক ও অভিভাবকদের নিয়ে নগর ভবনে জড়ো হতে শুরু করে।


ঢাকা শহরের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ প্রতীকী এই কর্মসূচিতে অংশ নিতে বাস, ট্রাক, পিকআপ ভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহনে নগর ভবনে আসেন। তারা সুশৃঙ্খল ও সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে সিটি করপোরেশনের দেওয়া ঝাড়ু ও কার্ড সংগ্রহ করেন। রেজিস্ট্রেশন ও কার্ড সংগ্রহ শেষ হওয়ার পর নগর ভবন থেকে গোলাপশাহ্ মাজার, গুলিস্তান জিরো পয়েন্ট, পল্টন মোড় এলাকায় সড়ক পরিচ্ছন্নতার অভিযান শুরু হয়।


এই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচিতে সর্বাধিক মানুষের অংশগ্রহণের মাধ্যমে গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে বাংলাদেশ স্থান করে নেবে বলে আশাবাদী ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন।


কর্মসূচিতে জাতীয় স্কাউট, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি), ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি), ফায়ার সার্ভিস, নৃত্যশিল্পী, চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, অভিনেতা, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান থেকে লোকজন অংশ নিয়েছে।


অন্যাদের পাশাপাশি কর্মসূচিতে অংশ নেন সংসদ সদস্য গাজী গোলাম দস্তগীর, সানজিদা খানম, প্রধান নির্বাচন কমিশন কে এম নূরুল হুদা, চিত্র নায়ক রিয়াজ, ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বেলাল, ডিএনসিসির প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের ছেলে নাবিদুল হক প্রমুখ।

 


Top