ঢাকা-দিল্লির মধ্যে ৬ সমঝোতা স্মারক সই | daily-sun.com

ঢাকা-দিল্লির মধ্যে ৬ সমঝোতা স্মারক সই

ডেইলি সান অনলাইন     ৯ এপ্রিল, ২০১৮ ১৪:১৬ টাprinter

ঢাকা-দিল্লির মধ্যে ৬ সমঝোতা স্মারক সই

 

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ৬টি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। সোমবার (৯ এপ্রিল) দুপুর ১২টা ৪০ মিনিটের দিকে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় দুই দেশের পররাষ্ট্র সচিব ও বিভিন্ন দপ্তরের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা এসব সমঝোতা স্মারকে সই করেন।

 


এর আগে সকাল ১০টায় একই স্থানে বাংলাদেশ ও ভারতের পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক শুরু হয়। বৈঠক চলে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক। অন্যদিকে, ভারতের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বিজয় কেশব গোখলে। এ ছাড়াও এ বৈঠকে দুই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


বৈঠক শেষে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব গোখলে বলেন, দুই দেশ সন্ত্রাস দমনে একসঙ্গে কাজ করতে সম্মত হয়েছে। ভারত দুই দেশের মানুষে মানুষে যোগাযোগ সবচেয়ে গুরুত্ব দেয়। দুই দেশের সম্পর্ক এখন সর্বোচ্চ উচ্চতায়।


এ সময় বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের যোগ্যতা অর্জনে শুভেচ্ছা জানান গোখলে।


বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক বৈঠকের বিষয়ে বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুসহ তিস্তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তারা (ভারতে) যত দ্রুত সম্ভব এটি সমাধান করবে, আমি খুশি।


এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বিজয় কেশব গোখলে।


এদিকে, বেলা ২টায় রাজধানীর একটি হোটেলে ইনস্টিটিউট অব পলিসি, অ্যাডভোকেসি অ্যান্ড গভর্নেন্সের (আইপিএজি) উদ্যোগে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক নিয়ে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন গোখলে। প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।


সফরকালে বিজয় কেশব গোখলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন।


প্রসঙ্গত, গতকাল রবিবার (৮ এপ্রিল) বিকেল ৪টা ২০মিনিটের দিকে বাংলাদেশ সফরে আসনে বিজয় কেশব গোখলে। বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হকসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা তাকে বিমানবন্দরে স্বাগতম  জানান।


জানুয়ারির শেষ দিকে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর বিজয় কেশবের এটিই প্রথম বাংলাদেশ সফর। গোখলের এ সফরকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন কূটনীতিকরা।

 


Top