কেটে ফেলা গাছ থেকে দেবতার অশ্রু! | daily-sun.com

কেটে ফেলা গাছ থেকে দেবতার অশ্রু!

ডেইলি সান অনলাইন     ৪ এপ্রিল, ২০১৮ ১৫:২২ টাprinter

কেটে ফেলা গাছ থেকে দেবতার অশ্রু!

ডুমুর গাছের ডাল কাটতেই তা থেকে পড়ছে ফোঁটা ফোঁটা জল। আর তা দেখেই গাছের দৈব মহিমা টের পেলেন এলাকাবাসী।

সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়ে গেল পূজা অর্চনার তোড়জোড়। এল প্রণামীর থালা, বাড়তে থাকল ভিড়। একবাক্যে সবাই মেনে নিল, এ গাছ আর পাঁচটা গাছের মতো সাধারণ নয়। এই ডুমুরগাছে নিশ্চিতভাবেই বাস করেন দেবতা। তাঁর মহিমাতেই পড়ছে জল।

 

প্রত্যন্ত কোনও গ্রাম নয়, কলকাতাতেই অন্ধ বিশ্বাসের এই ছবি ধরা পড়ল। ঘটনাটি ঘটেছে উল্টোডাঙার মুরারিপুকুর এলাকায়। কাটা ডুমুর গাছকে ঘিরেই মঙ্গলবার থেকে সেখানে রীতিমতো উৎসবের আয়োজন। দৈব মহিমা দেখতে উপচে পড়ছে ভিড়, প্রণামীর থালা।

 

গত সোমবার বিদ্যুতের তারে গাছের ডাল গিয়ে পড়ছে বলে সিইএসসির পক্ষ থেকে গাছের উপরের দিকের ডাল কেটে ফেলা হয়। তার পরেই স্থানীয় বাসিন্দারা লক্ষ্য করেন, গাছের কাটা ডালগুলি থেকে জল পড়ছে। এর থেকেই কয়েকজনের ধারণা হয়, গাছের দৈব মহিমা রয়েছে সেই কারণেই সেখান থেকে জল পড়ছে।

 

এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই গাছকে দেখার ভিড় বাড়তে থাকে। আশপাশের এলাকা থেকেও খবর পেয়ে গাছ দেখতে আসেন মানুষ। অনেকেই মনস্কামনা পূরণে প্রণামীও দিয়ে যান। গাছকে ঘিরে পুজো শুরু করেন যে স্থানীয় বাসিন্দারা, তাঁরা ওই স্থানে একটি মন্দির তৈরির পরিকল্পনাও করে ফেলেছেন।

 

উদ্ভিদ বিজ্ঞানীরা বলছেন গাছটি পুরো কাটা হয়নি, ফলে তার মধ্যে প্রাণ রয়েছে। আর পাঁচটা গাছের মতো খাবার তৈরির স্বাভাবিক নিয়মে সালোকসংশ্লেষের জন্যই গোড়া থেকে গাছের পাতায় জল যাচ্ছে। 

ফলে, গাছের পাতার মধ্যে খাদ্য তৈরির পরে যে অতিরিক্ত জল থেকে যাচ্ছে, সেটাই একটু একটু করে গাছের কাটা ডাল দিয়ে বেরিয়ে আসছে। যে কোনও বড় গাছের ডাল কাটলে এমন দৃশ্য স্বাভাবিক বলেই জানাচ্ছেন যুক্তিবাদীরা।

 

স্থানীয় বাসিন্দারা কয়েকজন এই যুক্তি মানলেও অনেকেই দৈব মহিমায় মজে রয়েছেন। ফলে, বিজ্ঞানের যুক্তি মানতে তাঁদের বয়েই গিয়েছে। 

 

 

সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়ে গেল পূজা অর্চনার তোড়জোড়। এল প্রণামীর থালা, বাড়তে থাকল ভিড়। একবাক্যে সবাই মেনে নিল, এ গাছ আর পাঁচটা গাছের মতো সাধারণ নয়। এই ডুমুরগাছে নিশ্চিতভাবেই বাস করেন দেবতা। তাঁর মহিমাতেই পড়ছে জল।

 

প্রত্যন্ত কোনও গ্রাম নয়, কলকাতাতেই অন্ধ বিশ্বাসের এই ছবি ধরা পড়ল। ঘটনাটি ঘটেছে উল্টোডাঙার মুরারিপুকুর এলাকায়। কাটা ডুমুর গাছকে ঘিরেই মঙ্গলবার থেকে সেখানে রীতিমতো উৎসবের আয়োজন। দৈব মহিমা দেখতে উপচে পড়ছে ভিড়, প্রণামীর থালা।

 

গত সোমবার বিদ্যুতের তারে গাছের ডাল গিয়ে পড়ছে বলে সিইএসসির পক্ষ থেকে গাছের উপরের দিকের ডাল কেটে ফেলা হয়। তার পরেই স্থানীয় বাসিন্দারা লক্ষ্য করেন, গাছের কাটা ডালগুলি থেকে জল পড়ছে। এর থেকেই কয়েকজনের ধারণা হয়, গাছের দৈব মহিমা রয়েছে সেই কারণেই সেখান থেকে জল পড়ছে।

 

এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই গাছকে দেখার ভিড় বাড়তে থাকে। আশপাশের এলাকা থেকেও খবর পেয়ে গাছ দেখতে আসেন মানুষ। অনেকেই মনস্কামনা পূরণে প্রণামীও দিয়ে যান। গাছকে ঘিরে পুজো শুরু করেন যে স্থানীয় বাসিন্দারা, তাঁরা ওই স্থানে একটি মন্দির তৈরির পরিকল্পনাও করে ফেলেছেন।

 

উদ্ভিদ বিজ্ঞানীরা বলছেন গাছটি পুরো কাটা হয়নি, ফলে তার মধ্যে প্রাণ রয়েছে। আর পাঁচটা গাছের মতো খাবার তৈরির স্বাভাবিক নিয়মে সালোকসংশ্লেষের জন্যই গোড়া থেকে গাছের পাতায় জল যাচ্ছে। 

ফলে, গাছের পাতার মধ্যে খাদ্য তৈরির পরে যে অতিরিক্ত জল থেকে যাচ্ছে, সেটাই একটু একটু করে গাছের কাটা ডাল দিয়ে বেরিয়ে আসছে। যে কোনও বড় গাছের ডাল কাটলে এমন দৃশ্য স্বাভাবিক বলেই জানাচ্ছেন যুক্তিবাদীরা।

 

স্থানীয় বাসিন্দারা কয়েকজন এই যুক্তি মানলেও অনেকেই দৈব মহিমায় মজে রয়েছেন। ফলে, বিজ্ঞানের যুক্তি মানতে তাঁদের বয়েই গিয়েছে। 

 

 


Top