সরকার দুদককে দিয়ে নতুন প্রকল্প খুলেছে: রিজভী | daily-sun.com

সরকার দুদককে দিয়ে নতুন প্রকল্প খুলেছে: রিজভী

ডেইলি সান অনলাইন     ৩ এপ্রিল, ২০১৮ ১৪:২০ টাprinter

সরকার দুদককে দিয়ে নতুন প্রকল্প খুলেছে: রিজভী

 

সরকার দুদককে দিয়ে নতুন প্রকল্প খুলেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনকে বাধাগ্রস্ত করতেই দুদককে কাজে লাগানো হচ্ছে।

মঙ্গলবার (৩ এপ্রিল) দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন রুহুল কবির রিজভী।  


তিনি বলেন, হঠাৎ করে বিএনপির সিনিয়র নেতা ও তাদের পরিবারের বিরুদ্ধে অবৈধ টাকা লেনদেনের অভিযোগ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, যা মিথ্যা এবং বানোয়াট। বলেন, তারা আবারো একটি ভোটারবিহীন নির্বাচন করতে চায়। কিন্তু সেটা তারা করতে পারবে না।


সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, বরকত উল্লাহ বুলু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, আব্দুল আউয়াল খান প্রমুখ।

 


প্রসঙ্গত, বিএনপির শীর্ষস্থানীয় আট নেতাসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে ১২৫ কোটি টাকার সন্দেহজনক লেনদেন, অবৈধ সম্পদ অর্জন ও মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগ অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।  


যাদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান চলছে তারা হলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, নজরুল ইসলাম খান, সহ-সভাপতি আবদুল আউয়াল মিন্টু, এম মোর্শেদ খান, যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল, এম মোর্শেদ খানের ছেলে ফয়সাল মোর্শেদ খান ও ঢাকা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সৈয়দ মাহবুবুর রহমান।

 

- ওপরে বাঁ দিক থেকে নজরুল ইসলাম খান, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আবদুল আউয়াল মিন্টু ও এম মোর্শেদ খান; নিচে বাঁ দিক থেকে আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও মির্জা আব্বাস, হাবিব উন নবী খান সোহেল ও তাবিথ আউয়াল।


দুদক সূত্র জানায়, গত ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে ৪ মার্চ এই সময়ের মধ্যে বিএনপির এসব নেতার ব্যাংক হিসাব থেকে ১২৫ কোটি টাকার সন্দেহজনক লেনদেন হয়, যা একটি গোয়েন্দা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

গোয়েন্দার ওই সূত্র ধরে অনুসন্ধানে নেমেছে সংস্থাটি।


অনুসন্ধানের জন্য দুদকের উপ-পরিচালক মো. সামছুল ইসলামের নেতৃত্বে দুই সদস্যের অনুসন্ধান টিম গঠন করা হয়েছে। টিমের অপর সদস্য হলেন দুদকের সহকারী পরিচালক মো. সালাহ উদ্দিন।

 

আরও পড়ুন:

 

বিএনপির ৮ নেতার ১২৫ কোটি টাকার লেনদেন অনুসন্ধানে দুদক

 

 


Top