রিজার্ভ চুরি মামলার প্রতিবেদন ৩ মে | daily-sun.com

রিজার্ভ চুরি মামলার প্রতিবেদন ৩ মে

ডেইলি সান অনলাইন     ১ এপ্রিল, ২০১৮ ১৩:৩৮ টাprinter

রিজার্ভ চুরি মামলার প্রতিবেদন ৩ মে

 

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের সময় ফের পিছিয়েছে। প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৩ মে দিন ধার্য করেছেন আদালত। রবিবার (১ এপ্রিল) ঢাকা মহানগর হাকিম এ কে এম মাঈন উদ্দিন সিদ্দিকী নতুন এ দিন ধার্য করেন। এ দিন মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। তবে মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি প্রতিবেদন দাখিল না করায় নতুন দিন ধার্য করা হয়।

 
প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে (ফেড) রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি হয়। পাঁচটি সুইফট বার্তার মাধ্যমে চুরি হওয়া এ অর্থের মধ্যে ২ কোটি ডলার চলে যায় শ্রীলঙ্কা এবং ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চলে যায় ফিলিপাইনের জুয়ার আসরে। এই ঘটনার প্রায় একমাস পর ফিলিপাইনের একটি পত্রিকার সংবাদের মাধ্যমে বিষয়টি বাংলাদেশ জানতে পারে।


শ্রীলঙ্কায় যাওয়া ২ কোটি ডলার ফেরত আসে। তবে ফিলিপাইনে যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলারের মধ্যে এখনও ফেরত আসেনি ৬ কোটি ৬৪ লাখ ডলার।  


এদিকে এ ঘটনা চেপে রাখতে গিয়ে সমালোচনার মুখে পড়ে গভর্নরের পদ ছাড়তে বাধ্য হন ড. আতিউর রহমান।

বড় ধরনের রদবদল করা হয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের শীর্ষপর্যায়ে। পরে বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক জোবায়ের বিন হুদা মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন-২০১২ (সংশোধনী ২০১৫) এর ৪-সহ তথ্য ও প্রযুক্তি আইন-২০০৬ এর ৫৪ ধারায় ও ৩৭৯ ধারায় ওই বছরের ১৫ মার্চ মতিঝিল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় সিআইডিকে। তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর সিআইডি এ পর্যন্ত ২১ বার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আদালতের কাছ থেকে সময় চেয়ে নিয়েছে। পৃথকভাবে ঘটনাটির আন্তর্জাতিক তদন্ত করছে এফবিআই।  


দেশের অভ্যন্তরের কোনো একটি চক্রের সহায়তায় হ্যাকার গ্রুপ রিজার্ভের অর্থ পাচার করেছে বলে ধারণা করে আসছিলেন সংশ্লিষ্টরা। তবে এ চুরির ঘটনায় ‘রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা’ রয়েছে বলে এবার দাবি করল যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই’র এক কর্মকর্তা। গত ৩০ মার্চ রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।


ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের লিগ্যাল অ্যাটাসে হিসেবে দায়িত্বরত রয়েছেন ল্যামন্ট সিলার। রিজার্ভ চুরির ঘটনায় এফবিআই’র তদন্তে এই কর্মকর্তা যুক্ত ছিলেন। সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক এক আলোচনায় ল্যামন্ট সিলার বলেন, সবাই বাংলাদেশ ব্যাংকের চুরির কথা জানে। এটি ব্যাংকিং খাতে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় হামলার একটি উদাহরণ।


এর পরের দিনই (৩১ মার্চ) বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, রিজার্ভ চুরির বিষয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে যে অভিযোগ করে হয়েছিল, সেটি এখন সত্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, নিউইয়র্ক ফেডারেল রিজার্ভ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের ৮১ মিলিয়ন ডলার চুরি রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় হয়েছে বলে এফবিআই নিশ্চিত করেছে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ রিজার্ভ চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের নাম প্রকাশের কাছাকাছি পৌঁছেছে বলে এফবিআই জানিয়েছে। বিএনপির পক্ষ থেকে যে অভিযোগ করে হয়েছিল, সেটি এখন সত্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।


এদিকে চলতি এপ্রিলেই রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকের (আরসিবিসি) বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে ফৌজদারি মামলা করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত ৪ মার্চ অর্থ মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে এ সংক্রান্ত্র আন্তঃমন্ত্রণালয়ের এক সভা শেষে এমনটি জানিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ওই দিন তিনি আরও জানান, মামলা করার জন্য কোনো ল ফার্ম নিয়োগ দেয়া হয়নি। তবে আমেরিকার একটি ফার্মকে নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।


এছাড়া এ মামলায় ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে পার্টি করতে চায় বাংলাদেশ। তবে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক পার্টি হতে রাজি হয়নি। তবে এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর যোগাযোগ করছে বলেও জানান অর্থমন্ত্রী।


তবে ওই দিনই বৈঠক সূত্রে জানা গিয়েছিল, এপ্রিলের মধ্যে এ সংক্রান্ত রিপোর্ট সিআইডির পক্ষে দেয়া সম্ভাব নয়। তবে এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে ফৌজদারি মামলা করতে বাংলাদেশ সময় পাবে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

 


Top