'ওকে নগ্ন দেখেও আমার কোনও উত্তেজনা জাগে না!' | daily-sun.com

'ওকে নগ্ন দেখেও আমার কোনও উত্তেজনা জাগে না!'

ডেইলি সান অনলাইন     ২৫ আগস্ট, ২০১৬ ১০:১১ টাprinter

'ওকে নগ্ন দেখেও আমার কোনও উত্তেজনা জাগে না!'

সম্পর্কে কিছু সমস্যা থাকে, যা সব সময় প্রকাশ পায় না। অথচ ধীরে ধীরে ভেঙে যায় দাম্পত্য। সেরকমই এক সমস্যা নিয়ে 'টাইমস অফ ইন্ডিয়া'-র এক্সপার্ট অ্যাডভাইসের। এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, তাঁর স্ত্রীর প্রতি কোনও শারীরিক উত্তেজনা জাগে না। অথচ দাম্পত্য জীবনের অন্যান্য বিষয়গুলি ঠিকই রয়েছে। প্রতিবেদন এই সময়ের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ব্যক্তি লিখছেন,
আমাদের দেখাশোনা করেই বিয়ে হয়েছে। দু'জনেই চাকরি করি। আমাদের মা-বাবারাও খুব সাপোর্টিভ। সংসারের সব কাজই আমরা মিলেমিশে করি। কিন্তু আমাদের কোনও শারীরিক সুখ নেই। সমস্যা হল, স্ত্রীর প্রতি কিছুতেই আমার কামনা জাগে না। কিছুতেই ওকে শারীরিক সুখী করতে পারি না। কিন্তু আমার স্ত্রীকে দেখতে ভালো। ব্যক্তিত্ব আছে। একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধা ও বিশ্বাস রয়েছে। আমরা চাই, শারীরিক ভাবেও সুখী হতে। অথচ, স্ত্রী ছাড়া অন্য মহিলাদের প্রতি উত্তেজনা জন্মায়। ফলে খুব অপরাধ বোধে ভুগি। ডাক্তার দেখিয়েছি। কোনও যৌন সমস্যা নেই। কিন্তু আমাদের শারীরিক দূরত্ব দাম্পত্যে প্রভাব ফেলছে। প্লিজ, হেল্প করুন।

সমস্যাটির উত্তরে মনোবিদ প্রজ্ঞা শর্মা জানিয়েছেন, প্রথমেই বলব, এই জেট যুগে ও দ্রুত জীবনযাপনের মধ্যেও আপনাদের মধ্যে খুব ভালো বোঝাপড়া রয়েছে ও একে অপরকে শ্রদ্ধা করেন, এটা খুবই ভালো। বিশেষ করে আপনাদের যখন দেখাশোনা করে বিয়ে হয়েছে। তাই খুব খারাপ লাগছে আপনাদের সেক্স লাইফের সমস্যাটা শুনে। দেখুন, যৌন জীবনে সমস্যা থাকতেই পারে। আর এটা আপনার দোষ নয় যে, আপনাকে স্ত্রী সব দোষ দেবেন। আপনি যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন সমস্যা সমাধানের। আপনার স্ত্রী সেটা দেখছেন।

যৌন জীবন সুখী না হলে, অবসাদ, অশান্তি, রাগের মতো নানা সমস্যা দেখা দেয়। আপনি যখন বলছেন, সংসারে অন্য কোনও অশান্তি নেই, তাহলে আমরা অন্য ইস্যুটা নিয়ে কথা বলি। হতে পারে, আপনার কাজের জায়গায় খুব চাপ। সেই চাপের বহিঃপ্রকাশ, স্ত্রীর শরীরের প্রতি অনাসক্তি। স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক মিলনে একঘেঁয়ে লাগে। তাহলে বলব, সেক্সেই কিছু নতুনত্ব আনুন। দরকার হলে, সেক্স টয় ব্যবহার করুন। একে অপরকে মৈথুন করে দিতে পারেন। আর যখন শারীরিক মিলনে লিপ্ত হবেন, তখন মাথায় আর কিছু রাখবেন না। উত্তেজক গল্প করুন। রিল্যাক্সড থাকুন।

এরপরেও যদি সমস্যা হয়, তাহলে কোনও থেরাপিস্টের সাহায্য নিন।


Top