বিমান দুর্ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ যাত্রীদের চিকিৎসা নিয়ে সংশয়! | daily-sun.com

বিমান দুর্ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ যাত্রীদের চিকিৎসা নিয়ে সংশয়!

ডেইলি সান অনলাইন     ১২ মার্চ, ২০১৮ ২০:৩১ টাprinter

বিমান দুর্ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ যাত্রীদের চিকিৎসা নিয়ে সংশয়!

কাঠমান্ডু ত্রিভূবন বিমানবন্দরে বাংলাদেশের ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান দুর্ঘটনায় উদ্ধারকৃত জীবিত যাত্রীদের প্রয়োজনীয় উন্নত জরুরি চিকিৎসা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা। সেই সঙ্গে যত দ্রুত সম্ভব বাংলাদেশের একটি দক্ষ মেডিক্যাল টিম পাঠানোর তাগিদ দিয়েছেন।

 

জানতে চাইলে স্বাস্থ্য সচিব সিরাজুল হক খান বলেন, বিষয়টির প্রতি গুরুত্ব দিয়েই আমরা ইতিমধ্যেই একটি বিশেষজ্ঞ টিম রেডি করেছি। কাঠমান্ডুর বিমানবন্দর চালু হলে এবং যাওয়ার মতো ব্যবস্থা হলে যে কোনো সময় ওই টিম কাঠমান্ডু চলে যাবে।

 

কাঠমান্ডুর চিকিৎসা ব্যবস্থা ও হাসপাতালের ব্যাপারে খোঁজ-খবর রাখা একাধিক সূত্র জানিয়েছে, নেপালে এমনিতেই চিকিৎসা ব্যবস্থা তুলনামূলকভাবে বাংলাদেশের মতো এখনো উন্নত হয়নি। ফলে হাসপাতালগুলোতে এ ধরনের জরুরি চিকিৎসা দেওয়ার মতো সক্ষমতাও পরিপূর্ণভাবে নেই। বিশেষ করে অগ্নিদগ্ধ রোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থাপনায় নেপাল এখনো অনেকটাই দুর্বল। তাই সরকারে উচিত দ্রুত যেকোনো ভাবে একটি বার্ন বিশেষজ্ঞ টিম নেপালে পাঠানো।

 

আজ সোমবার সন্ধ্যায় জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন কালের কণ্ঠকে বলেন, নেপালে হাতেগোনা ২-৩ জন বার্ন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আছে। যারা আমাদের এখান থেকেও অভিজ্ঞতা নিয়েছে।

 

এছাড়া সেখানে যে হাসপাতালগুলোতে আহত বিমানযাত্রীদের নেওয়া হয়েছে সেগুলোতেও তেমন উন্নত কোনো বার্নের চিকিৎসা সুযোগ নেই।

তাই আমাদের সরকারের এক্ষেত্রে জরুরি সিদ্ধান্ত নেওয়া ও তা বাস্তবায়ন করা দরকার। আমরা প্রস্তুত আছি প্রয়োজনে আমরাও টিম নিয়ে চলে যাবো। এছাড়া আমাদের সেনাবাহিনীর মেডিক্যাল কোরেও বার্ন বিশেষজ্ঞ রয়েছেন তাদের সমন্বয়েও একটি টিম পাঠালে খুবই উপকার হবে।

 

ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, আমার কাছে সরকারের পক্ষ থেকে বার্ন বিশেষজ্ঞ একটি টিমের নাম চাওয়া হয়েছে মন্ত্রনালয় থেকে। সে অনুসারে আমি নাম দিয়ে দিয়েছি। এখন কেবল যাওয়ার অপেক্ষা। প্রয়োজনে আমরাও যেতে পারব।

 

এদিকে কাঠমান্ডুর একটি সূত্র জানিয়েছে, সিলেটের রাগীব রাবেয়া মেডিক্যাল কলেজের ১৩ নেপালী শিক্ষার্থী গতকাল কলেজের পরীক্ষা শেষে ইউএস বাংলায় কাঠমান্ডু আসছিলেন। এছাড়াও কয়েকজন ডাক্তারও ছিলেন যারা রেজিস্ট্রেশনের জন্য দেশে এসেছিলেন।

 


Top