বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপি নিজেই দায়ী হবে: কাদের | daily-sun.com

বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপি নিজেই দায়ী হবে: কাদের

ডেইলি সান অনলাইন     ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ১৭:৪২ টাprinter

বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপি নিজেই দায়ী হবে: কাদের

 

বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপি নিজেই দায়ী হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ চায় না বিএনপি ভাঙুক, চেষ্টাও করবে না।

বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপি নিজেই দায়ী হবে।  


মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর এয়ারপোর্ট রোডে, বিআরটিএ’র নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ অভিযান পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।


তিনি বলেন, বিএনপির সংকট আমরা ঘনীভূত করব না, তাদের সংকট ঘনীভূত করার জন্য তারেক রহমানই যথেষ্ট।


ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ চায় বিএনপির মতো বড় দল নির্বাচনে আসুক। একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনের জন্য বিএনপির মতো বড় দলের নির্বাচনে থাকাটা দরকার। তবে খালেদা জিয়ার কারাবাস প্রলম্বিত হবে কি না আদালতই ভাল জানেন। খালেদা জিয়ার আপিলের সুযোগ আছে। জামিন দিবে কি না সিদ্ধান্ত নিবেন আদালত।  


তিনি বলেন, কোনো রাজনৈতিক আন্দোলনই কখনো সফল হয় না, যদি জনগণের সমর্থন না থাকে।

খালেদা জিয়ার জন্য মানুষ রাস্তায় নামেনি। মানুষ কি এখন বিএনপির জন্য রাস্তায় নামবে?  মানুষ এখন আর আন্দোলের মুডে নেই, নিবার্চনের মুডে আছে জনগণ।


ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বিএনপির ডাকে বিগত নয় বছর সাড়া দেয়নি জনগণ। নেতারা যদি আন্দোলনের ডাক দিয়ে ঘরে বসে থাকে, তাহলে আন্দোলন কীভাবে সম্ভব? তারা একবার বলছে, যেকোনো পরিস্থিতিতে নিবার্চনে যাবে, আবার বলছে, খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচনে যাবে না। তারা আসলে কোনটা চায়?

 

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায় ঘোষণা করেন। রায়ে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী সলিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ডাদেশ এবং দুই কোটি ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।


দণ্ডবিধি ১০৯ ও ৪০৯ ধারায় খালেদা জিয়াসহ বাকিদের সাজা দেয়া হয়। মামলায় মোট আসামি ছয়জন। তাদের মধ্যে তিনজন পলাতক রয়েছেন। তারা হলেন- বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী এবং বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।


রায়ের পর পরই খালেদা জিয়াকে আদালতের পাশে নাজিমউদ্দিন রোডের ২২৮ বছরের পুরান ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। নির্জন এই কারাগারে একমাত্র বন্দি হিসেবে আছেন তিনি।


২০১৬ সালের ২৯ জুন থেকে ছয় হাজার ৪০০ বন্দিকে কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়ার রাজেন্দ্রপুরের নতুন কারাগারে স্থানান্তর করে পুরান কারাগার বন্ধ ঘোষণা করা হয়। কিন্তু দুই বছর চার মাস ১০ দিন পর দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে এই পরিত্যক্ত কারাগারেই দিন পার করছেন খালেদা জিয়া।


এদিকে রায়ের পর পাঁচ দিন অতিবাহিত হলেও রায়ের সার্টিফাইড কপি না পাওয়ায় রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারেননি খালেদা জিয়া।

 

 


Top