পটিয়ায় পদার্থ বিজ্ঞানের প্রশ্ন ফাঁস, ৫৬ পরীক্ষার্থী নজরদারিতে | daily-sun.com

পটিয়ায় পদার্থ বিজ্ঞানের প্রশ্ন ফাঁস, ৫৬ পরীক্ষার্থী নজরদারিতে

ডেইলি সান অনলাইন     ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ১৩:৪৬ টাprinter

পটিয়ায় পদার্থ বিজ্ঞানের প্রশ্ন ফাঁস, ৫৬ পরীক্ষার্থী নজরদারিতে

 

চট্টগ্রামে এসএসসি পরীক্ষা শুরুর আধাঘণ্টা আগে চট্টগ্রাম আইডিয়াল স্কুলের ৫৬ শিক্ষার্থীর কাছ থেকে এসএসসি পদার্থ বিজ্ঞানের প্রশ্নপত্র জব্দ করেছে পুলিশ প্রশাসন। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) পরীক্ষার শুরুর আধঘণ্টা আগে ওই ৫৬ শিক্ষার্থীর কাছে পাওয়া প্রশ্নের সঙ্গে মূল প্রশ্ন হুবহু মিলে গেছে।

এদিকে ওই ৫৬ শিক্ষার্থীকে নজরদারিতে রেখেছে প্রশাসন।


সকালে পটিয়া উপজেলা থেকে নগরীর কোতোয়ালি থানাধীন বাংলাদেশ মহিলা সমিতি স্কুলকেন্দ্রে আসার সময় তাদেরকে আটক করে পুলিশ। তবে তাদের আজকের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।


চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) হাবিবুর রহমান বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, পরীক্ষার্থীরা চট্টগ্রাম আইডিয়াল স্কুলের পটিয়া শাখার শিক্ষার্থী।


তিনি আরও বলেন, পরীক্ষার্থীরা শ্যামলী পরিবহনের একটি বাসে করে পরীক্ষা দিতে যাচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সকাল সোয়া ৯টার দিকে কোতোয়ালি থানাথীন জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদের সামনে ওই বাসে তল্লাশি চালায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোরাদ আলীর নেতৃত্বে একটি টিম। এ সময় ওই বাসে থাকা ৭/৮জন শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোনে প্রশ্নপত্র পাওয়া যায়। ওই প্রশ্নপত্রের সঙ্গে পরীক্ষার জন্য প্রদত্ত প্রশ্নপত্রের মিল পাওয়া যায়।


হাবিবুর রহমান আরও বলেন, আটক পরীক্ষার্থীদের বিশেষ নজরদারিতে রেখে একটি আলাদা কক্ষে পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। এরপর তাদের নিয়মিত মামলা দিয়ে গ্রেফতার দেখানো হবে।


পটিয়া থানার ওসি শেখ মো. নেয়ামত উল্লাহ জানান, মঙ্গলবার সকালে পরীক্ষা শুরুর আগে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের খবর পাওয়া যায়। পরে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের সঙ্গে মিলিয়ে দেখা যায় মূল প্রশ্ন হুবহু মিলে গেছে। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।


এসএসসি পরীক্ষা ২০১৮ সালের রুটিন অনুসারে দেশজুড়ে পদার্থ বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা, ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং পরীক্ষা এক যোগে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।


এবার এসএসসিতে প্রথম দিন থেকে প্রশ্নফাঁস হচ্ছে। প্রশ্ন ফাঁসকারীদের ধরিয়ে দিলে শিক্ষামন্ত্রীর পুরস্কার ঘোষণার পরও তা থেমে নেই। ফেইসবুক পেইজে- গ্রুপে চলছে কার আগে কে প্রশ্ন দিতে পারে, তার প্রতিযোগিতা। আগের পরীক্ষার প্রশ্ন সবার আগে দিয়েছে, এমন প্রমাণ দেখিয়ে দিনরাত অসংখ্য আইডি থেকে বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছে প্রশ্নফাঁসের।


এদিকে প্রশ্নফাঁস করে একটি চক্র অভিভাবকদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে বিশাল অংকের টাকা। পাশাপাশি পড়ালেখা বাদ দিয়ে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের দিকে ছুটছেন সাধারণ মানুষ।


যদিও প্রশ্নফাঁস নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এ যাবত কাল বেশ কয়েকজনকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।


ইংরেজি দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষা শুরুর পৌনে এক ঘণ্টা বা আধা ঘণ্টা আগে প্রশ্নফাঁস হলেও, এরপর অনুষ্ঠিত হওয়া ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা এবং গণিতের প্রশ্নফাঁস হয়েছে যথাক্রমে এক ও দেড় ঘণ্টা আগে।


চলমান এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সকাল ৮টা থেকে সাড়ে দশটা পর্যন্ত ইন্টারনেটের গতি সীমিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। তবে ১ দিন গতি সীমিত রেখে পরে আবার এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হয়।


এদিকে প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে পর্যায়ক্রেম নৈবক্তিক প্রশ্ন তুলে দেয়ার চিন্তা করছে সরকার। সাংবাদিকদের এমনটা জানিয়েছেন শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী।  

 


Top