অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশনের কথা বলে কিডনি পাচার | daily-sun.com

অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশনের কথা বলে কিডনি পাচার

ডেইলি সান অনলাইন     ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ১৬:৩৪ টাprinter

 অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশনের কথা বলে কিডনি পাচার

তিনি জানতেন তিন বছর আগে তাঁর অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশন হয়েছে। এতদিন বাদে ভারতের  মুর্শিদাবাদের ফারাক্কার বাসিন্দা রীতা হালদার জানতে পারলেন, তাঁর শরীরে দু’টি কিডনির মধ্যে একটি নেই।

কিডনি হারানোর বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার পরেই স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ি লোকজনের বিরুদ্ধে কিডনি পাচারের অভিযোগ আনলেন ওই গৃহবধূ। 

 

মুর্শিদাবাদ জেলার ফারাক্কা থানার অন্তর্গত বিন্দুগ্রামের রীতা হালদার সঙ্গে ২০০৫ সালে বিয়ে হয় ওই জেলারই লালগোলা থানার কেষ্টপুর সারাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা বিশ্বজিৎ সরকারের। তাঁদের একটি পুত্রসন্তানও রয়েছে। রীতাদেবীর অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই পণের জন্য শ্বশুরবাড়িতে তাঁর উপরে অত্যাচার চালানো হত।  একাধিকবার বাপের বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে দেন তিনি।

 

ওই গৃহবধূর দাবি, বছর তিনেক আগে তাঁর পেটে ব্যথা হয়। তখন তাঁর স্বামী এবং শাশুড়ি মিলে কলকাতার একটি নার্সিং হোমে নিয়ে গিয়ে রীতাদেবীর অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশন করান। ওই গৃহবধূর অভিযোগ, অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশনের নামে তাঁর কিডনি পাচার করে দেওয়া হয়েছে।

 

কিন্তু কীভাবে কিডনি হারানোর কথা জানলেন ওই গৃহবধূ? গত নভেম্বর মাসে নার্সিং ট্রেনিং করতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন রীতাদেবী। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে শারীরিক পরীক্ষার সময়েই তাঁকে চিকিৎসকরা জানান, তাঁর শরীরের ডানদিকের কিডনিটি নেই। একথা শুনে আকাশ থেকে পড়েন রীতাদেবী। এর পরে নিশ্চিত হওয়ার জন্য মালদহের একটি নার্সিং হোমে এসে শারীরিক পরীক্ষা করান তিনি। সেখান থেকেও একই কথা বলা হয়।  

 

একথা জানতে পেরেই স্বামী বিশ্বজিৎ সরকার, শাশুড়ি বুলুরানি সরকার, জা মাধবী সরকারের বিরুদ্ধে ফরাক্কা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই গৃহবধূ। কিডনি পাচারের এই অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই রীতাদেবীর স্বামী পলাতক।

 


Top