ডিম ভেঙে যাওয়ায় ইমারজেন্সি নম্বরে ফোন | daily-sun.com

ডিম ভেঙে যাওয়ায় ইমারজেন্সি নম্বরে ফোন

ডেইলি সান অনলাইন     ২৫ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৬:০৪ টাprinter

ডিম ভেঙে যাওয়ায় ইমারজেন্সি নম্বরে ফোন

সম্প্রতি দেশে চালু হয়েছে ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক নাম্বার ৯৯৯। জরুরি প্রয়োজনে এ নাম্বারে ফোন করে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও অ্যাম্বুলেন্সের মতো সেবা পাওয়া যাবে।

তবে পশ্চিমা দেশগুলোতে এ ধরনের নাম্বার বহু আগে থেকেই প্রচলিত রয়েছে। আর এসব নাম্বারে অনেকেই বেশ বিরক্তিকর ফোন করে সময় নষ্ট করেন।

 

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের জরুরি নাম্বারে আসা বিরক্তিকর ফোনের একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে উঠে এসেছে কর্মীদের জন্য হাস্যকর ও বিব্রতকর কিছু ফোনকলের বর্ণনা। এতে দেখা যায়, এমনকি ডিম ভেঙে গেলেও মানুষ ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে পরামর্শ চায়।

 

যুক্তরাজ্যের ইস্ট মিডল্যান্ডস অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস জানিয়েছে সম্প্রতি তাদের ৯৯৯ নম্বরে এক নারী ফোন করে এমন এক প্রশ্ন করেন, যা রীতিমতো হাস্যকর। সে নারী ফোন করে বলেন, ‘আমার ফ্রিজে এক বাক্স ডিম আছে। তার মধ্যে একটি ডিম কিভাবে যেন ভেঙে গেছে। এরপর আমি ডিমগুলোকে বাক্সের ঢাকনার ওপর সরিয়েছি।

ফ্রিজে সেই বাক্সটি সারারাত খোলা ছিল।   ফ্রিজে এভাবে খোলা বাক্সে ভাঙা ডিম রাখা যাবে কি?’

 

এর জবাবে তাকে বলা হয়, এমন প্রশ্নের জন্য ৯৯৯ উপযুক্ত জায়গা নয়। তখন তিনি পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘তাহলে কাকে এমন প্রশ্ন করব?’ জরুরি নাম্বারে ফোন করে অনেকেই মৃত প্রাণী সরানোর অনুরোধ করে। অনেকে আবার সকালের নাশতার জন্য কল করে। এছাড়া ডাক্তারের জন্য অপেক্ষায় থাকতে নারাজ হয়ে অনেকে জরুরি নাম্বারে ফোন করে বিরক্ত করে।

 

৯৯৯-এর মতো জরুরি নম্বরে এ ধরনের ফোন করা হলে তাতে দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের সময় যেমন নষ্ট হয় তেমন জরুরি প্রয়োজনের বহু মানুষের লাইন না পাওয়ার আশঙ্কাও থাকে। এ কারণে এমন ধরনের ফোন না করার বিষয়টিতে গুরুত্ব দিচ্ছেন কর্মকর্তারা।

 

সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট

 


Top