নান্দনিক ফার্নিচার ও ডিজাইন সল্যুশনের সমাহার নিয়ে বাংলাদেশে হ্যাফলে | daily-sun.com

নান্দনিক ফার্নিচার ও ডিজাইন সল্যুশনের সমাহার নিয়ে বাংলাদেশে হ্যাফলে

ডেইলি সান অনলাইন     ২৩ জানুয়ারী, ২০১৮ ২০:১১ টাprinter

নান্দনিক ফার্নিচার ও ডিজাইন সল্যুশনের সমাহার নিয়ে বাংলাদেশে হ্যাফলে

 

 স্টেট-অব-দ্যা-আর্ট নকশায় নির্মিত হ্যাফলে ডিজাইন সেন্টার রাজধানীর বনানীতে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে বিশ্বের ১৫০টি দেশে ব্যবসা পরিচালনাকারী ফার্নিচার ও বাড়িঘরের নকশা সংক্রান্ত উপকরণ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হ্যাফলে বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করলো। বাংলাদেশে নিযুক্ত জার্মানীর মাননীয় রাষ্ট্রদূত ড. থমাস প্রিঞ্জ প্রধান অতিথি হিসেবে এবং হ্যাফলের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউর্গেন উল্ফ উপস্থিত থেকে হ্যাফলে ডিজাইন সেন্টারটি উদ্বোধন করেন।   

       
বিশ্বমানের নান্দনিক ও অভিনব নকশাসম্বলিত উপকরণের পসরা সাজানো হয়েছে ৩,৩০০ বর্গফুটের শোরুমটিতে, যা দেখলে মনে হবে যেনো কল্পনাকে বাস্তবে রূপ দেয়া হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে হ্যাফলের ফাইন্যান্স বিভাগের পরিচালক পার্থ চক্রবর্তী এবং হ্যাফলে বাংলাদেশের জিএম আশিকুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।  
হ্যাফলের ফার্নিচার উপকরণের মধ্যে রয়েছে হিঞ্জেস, ড্রয়ার, হাতল, কানেক্টর ও পরিবেষ্টনকারী আলোকসজ্জা। নকশা সংক্রান্ত উপকরণগুলো হচ্ছে ডোর হার্ডওয়্যার ও ইলেক্ট্রনিক লকিং সিস্টেম। এছাড়া রয়েছে অন্যান্য ফার্নিচার, ভবন এবং হার্ডওয়্যার সাপ্লাই উপকরণ। স্মার্ট কনসেপ্ট, ইনোভেটিভ বা অভিনব সল্যুশনস এবং সীমাহীন সম্ভাবনার সমন্বয়ে হ্যাফলে প্রতিষ্ঠিত একটি ব্র্যান্ড। 

 

প্রথমবারের মতো ঢাকার হ্যাফলে ডিজাইন সেন্টারটিতে প্রজেক্ট কাস্টমারদের জন্য ডিসপ্লে রুমের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। ৩৬০ ডিগ্রি প্রজেক্ট সার্ভিসের সমন্বয়ে উক্ত রুম বা কক্ষে রয়েছে কার্যকর প্রজেক্ট সল্যুশনস যেখানে পুরো প্রজেক্ট বা প্রকল্প বাস্তবায়নে কারিগরি সহায়তা এবং উপদেশক সেবা বিদ্যমান। উক্ত প্রাঙ্গনে আগুন প্রতিরোধক দরজা, গ্লাস ডোর, আবাসিক দরজা এবং হোটেলের দরজার বিভিন্ন ডোর অ্যাপ্লিকেশন লাইভ ডিসপ্লে দেখার অভিজ্ঞতা পাবেন ক্রেতারা। পাশাপাশি প্যানিক এক্সিট ডিভাইস, প্যাচ ফিটিংসসহ বিশ^মানের ডিজিটাল ডোরের বিশাল সম্ভার রাখা হয়েছে এখানে। 

 

অন্যদিকে বাথরুম সল্যুশনস ও ডোর সিস্টেমের উপকরণ রয়েছে সেন্টারটিতে। স্মার্ট অ্যাপ্লায়েন্সের মধ্যে রয়েছে ফিল্টারমুক্ত এক্সট্রাকশন হুড, রূপান্তরিত রেফ্রিজারেটর এবং স্লাইডিং সল্যুশনস। বাড়িঘরের নকশা সংক্রান্ত সল্যুশনসের মধ্যে রয়েছে কিচেন সল্যুশনস, ব্লামের লেগ্রাবক্স, স্কিডো ড্রয়ার ম্যাট এবং কানেক্ট কাটল্যারি অর্গানাইজার্স। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হ্যাফলের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউর্গেন উল্ফ বলেন, “বিভিন্ন হোটেল ও বাণিজ্যিক প্রকল্পে পণ্য সরবরাহের মাধ্যমে আমরা গত ২০০৭ সালে প্রথম বাংলাদেশে পরিচালনা আরম্ভ করি। তখন আমাদের ছোট একটি দল ও কয়েকজন বিক্রয় প্রতিনিধি ছিলো। তবে ব্যাপক চাহিদার ভিত্তিতে সেবা ও কারিগরি সহায়তা দলের সমন্বয়ে আমরা বাংলাদেশে নিবেদিত রিজিওনাল অফিস প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে যাত্রা শুরু করলাম, যার ফলে ক্রেতারা উন্নত বিক্রয় পরবর্তী সেবা পাওয়ার সুযোগ পাবেন।”


  
হ্যাফলের ফাইন্যান্স বিভাগের পরিচালক পার্থ চক্রবর্তী বলেন, “ব্যবসা ও আবাসিক ভবনে নান্দনিক নকশার কারুকাজের লক্ষ্যে আমাদের রয়েছে দৃষ্টিনন্দন হার্ডওয়্যার ফিটিংসের সমাহার। ঢাকায় দি হ্যাফলে ডিজাইন শোরুমের লাইভ ডিসপ্লেতে ফার্নিচার ও বাড়িঘরের নকশা সংক্রান্ত সল্যুশনসগুলো দেখা ও ব্যবহারের মাধ্যমে হ্যাফলের উচ্চমানের পণ্য ও সল্যুশনস সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পাবেন ক্রেতারা।”  
উল্লেখ্য, দি হ্যাফলে গ্রুপ (হ্যাফলে জিএমবিএইচ এন্ড সিও কেজি) হচ্ছে জার্মানভিত্তিক একটি পারিবারিক এন্টারপ্রাইজ যার মূল কার্যালয় জার্মানীর ন্যাগোল্ডে অবস্থিত।

 


Top