আম আদমি’র ২০ বিধায়ককে অযোগ্য ঘোষণায় রাষ্ট্রপতির সম্মতি | daily-sun.com

আম আদমি’র ২০ বিধায়ককে অযোগ্য ঘোষণায় রাষ্ট্রপতির সম্মতি

ডেইলি সান অনলাইন     ২২ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৫:৫৮ টাprinter

আম আদমি’র ২০ বিধায়ককে অযোগ্য ঘোষণায় রাষ্ট্রপতির সম্মতি

 

নির্বাচন কমিশনের সুপারিশ আমলে নিয়ে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দল আম আদমি পার্টির ২০ বিধায়ককে অযোগ্য ঘোষণায় সম্মতি দিয়েছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। নিয়মবিধি ভেঙে লাভজনক পদে থাকায় কমিশনের প্রস্তাবমতো ওই ২০ বিধায়কের সদস্যপদ খারিজ করেছেন তিনি।

রোববারই (২১ জানুয়ারি) রাষ্ট্রপতি সই করেছেন ওই সুপারিশে। দলীয় বিধায়কদের সদস্যপদ খারিজের পদক্ষেপকে ‘অসাংবিধানিক” এবং গণতন্ত্রের জন্য বিপজ্জনক’ আখ্যা দিয়েছেন আম আদমি নেতা আশুতোষ।


রাষ্ট্রপতিকে উদ্ধৃত করে কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রণালয়ের জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কমিশনের মতামতের মাপকাঠিতে দিল্লি বিধানসভার ২০ সদস্যের পদ খারিজ করা হয়েছে।


ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এবিপি আনন্দ জানায়, বিদ্যমান নিয়ম অনুযায়ী, জনপ্রতিনিধিরা এমন কোনও সরকারি পদে থাকতে পারবেন না, যাতে নানা সুযোগসুবিধা বা ক্ষমতা মেলে; যদি না সেই পদকে লাভজনক পদের আওতার বাইরে রাখতে আইন পাস হয়।

 


আম আদমি পার্টির ওই বিধায়করা সংসদীয় সচিব পদে নিযুক্ত হয়েছিলেন। এই নিয়োগের ফলে তারা লাভজনক পদ পেয়েছেন বলে দাবি করে পিটিশন দিয়েছিলেন জনৈক আবেদনকারী। সেই দাবিকে স্বীকৃতি দিয়ে নির্বাচন কমিশন গত শুক্রবার রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশ পাঠায়। দিল্লির শাসক দলের ২০ বিধায়কের সদস্যপদ বাতিলে সম্মতি দিতে সুপারিশ করা হয়। এর বিরুদ্ধে ২০ বিধায়ক দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন।

নির্বাচন কমিশনের সুপারিশকে চ্যালেঞ্জ জানান তারা। বিচারপতি রেখা পাল্লি এই ব্যাপারে কোনও অন্তর্বর্তী নির্দেশ জারি করতে অস্বীকার করেন।


সংসদীয় সচিব পদটিকে ‘লাভজনক পদ’-এর বাইরে রেখে একটি বিল ২০১৬ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের কাছে পাঠিয়েছিল দিল্লি সরকার। রাষ্ট্রপতির কাছে আপত্তি জানান আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ। তখন বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে খতিয়ে দেখতে বলেন প্রণব মুখার্জি। তদন্তে প্রাথমিক সত্যতা পেয়ে ২০ জন বিধায়ককে কারণ দর্শাও নোটিস পাঠায় কমিশন। গত শুক্রবার কমিশন রাষ্ট্রপতিকে চূড়ান্ত রিপোর্ট দেয়। তাতে ওই বিধায়কদের বরখাস্তের সুপারিশ করা হয়।


অবশ্য, ২০ বিধায়ক বরখাস্ত হলেও বিধানসভায় আম আদমির সংখ্যাগরিষ্ঠতায় কোনও প্রভাব পড়বে না। কারণ ৭০ টি আসনের মধ্যে ৬৬টি আসনই কেজরিওয়াল সরকারের ছিল। এখন ২০টি বাদ গেলে এ সংখ্যা ৪৬ এ দাঁড়াবে যা মোট আসনের ৫০ শতাংশের বেশি।

 

- সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর ডট কম

 

 


Top