মার্কিন সিনেটরদের মতবিরোধে সরকারের কার্যক্রম বন্ধ! | daily-sun.com

মার্কিন সিনেটরদের মতবিরোধে সরকারের কার্যক্রম বন্ধ!

ডেইলি সান অনলাইন     ২০ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৩:১০ টাprinter

মার্কিন সিনেটরদের মতবিরোধে সরকারের কার্যক্রম বন্ধ!

 

বিতর্কিত অভিবাসন ও সরকারি ব্যয় সংক্রান্ত একটি বিল নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটরদের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দিয়েছে। ফলে দেশটির সরকারি কার্যক্রম ১৯ জানুয়ারি শুক্রবার মধ্যরাতের পর থেকে বন্ধ হয়ে যায়। দেশটির প্রধান দুই রাজনৈতিক দল রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটের সদস্যরা বিপরীতমুখী অবস্থান নেয়ায় বিরল এ সঙ্কটের তৈরি হয়। খবর বিবিসির।


আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সরকারের বাজেট বাড়ানো নিয়ে প্রস্তাবিত বিল সিনেটে অনুমোদনের শেষ সময় ছিল শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত। কিন্তু শেষ মুহূর্তেও একমত হতে পারেননি সিনেটররা।


রিপাবলিকান ও ডেমক্রেট সিনেটরদের মধ্যে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে তীব্র মতবিরোধ থাকায় ভোটের সিদ্ধান্ত নেন সংখ্যাগরিষ্ঠ সিনেটরদের নেতা মিচ ম্যাককনেল। তবে এই ভোটগ্রহণ কীভাবে চলছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। যদিও পরিস্থিতি বলছে, বিলটি নিয়ে পরবর্তী আলোচনার পথ খোলা রাখতে প্রয়োজনীয় ৬০ ভোটই পাওয়া যাবে না।


দ্রুত এই সমস্যারসমাধানে পৌঁছাতে না পারলে দেশটির অনেক সরকারি দফতর বন্ধ হয়ে যাবে। তবে জরুরি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর কাজ চলবে। বন্ধ হয়ে যাবে জাতীয় উদ্যান ও স্মৃতিস্তম্ভগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ কাজ।


এদিকে সরকারি কার্যক্রম বন্ধের এই বিল ডেমোক্রেট শিবির এমন এক দিনে আটকে দিলো যার এক বছর আগেই একই দিনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন রিপাবলিকান দলীয় ডোনাল্ড ট্রাম্প।


সরকারি এই অচলবাস্থার জন্য ডেমোক্রেট সদস্যদের দায়ী করে ব্যাপক সমালোচনা করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে দেয়া টুইট বার্তায় তিনি বলেছেন, ‘কর হ্রাসের বিরাট সাফল্য খর্ব করতেই ডেমোক্রেটরা এই অচলাবস্থা চায়।’


ডেমোক্রেটদের উদ্দেশ্যে তিনি প্রশ্ন তুলে বলেছেন, তারা (ডেমোক্রেটরা) আমাদের বিকাশমান অর্থনীতির জন্য কী করেছে। 


পৃথক এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি ডেমোক্রেট সদস্যদের ‘বিঘ্নসৃষ্টিকারী অভাগা’ বলে ডেকেছেন। 


বিবৃতিতে তিনি ডেমোক্রেটরা ‘আইনপ্রণেতা নয়’ বলেও মন্তব্য করেছেন।


আগামী মাস পর্যন্ত সরকারের বাজেট বাড়ানোর বিলটি বৃহস্পতিবার রাতে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে ২৩০-১৯৭ ভোট পাস হয়।


প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৩ সালে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময় সিনেটরদের মতবিরোধে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের তহবিল বন্ধ হয়ে গিয়েছিল এবং ১৬ দিন পর্যন্ত ওই অচলাবস্থা ছিল।

 


Top