পুরনো কথা মনে করতে সমস্যা হচ্ছে আইভীর | daily-sun.com

পুরনো কথা মনে করতে সমস্যা হচ্ছে আইভীর

ডেইলি সান অনলাইন     ২০ জানুয়ারী, ২০১৮ ১২:৪০ টাprinter

পুরনো কথা মনে করতে সমস্যা হচ্ছে আইভীর

 

মাঝে মাঝে পুরনো কথা মনে করতে সমস্যা হচ্ছে বলে চিকিৎসককে নিজেই জানালেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। মস্তিস্কে রক্তক্ষরণের কারণে এমনটা হচ্ছে কি-না জানতে চাইলে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করতে চাননি ওই চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. বরেণ চক্রবর্তী।

শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে ল্যাব এইডের এই কার্ডিয়াক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।


অধ্যাপক ডা. বরেণ চক্রবর্তী জানান, আইভীর চিকিৎসার্থে তার নেতৃত্বে নতুন করে পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন- অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া (নিউরোলজিস্ট), অধ্যাপক ডা. আশরাফ আলী (নিউরোলজিস্ট), অধ্যাপক ডা. মাসুদ আনোয়ার (নিউরোসার্জন) ও অধ্যাপক ডা. আবুল জাহেদ (কার্ডিওলজিস্ট)।


তিনি আরও জানান, শনিবার সকালে বোর্ড সদস্যদের তত্ত্বাবধানে আইভীর মস্তিস্কের ফের সিটি স্ক্যান করা হবে। সিটি স্ক্যান করে মস্তিস্কে রক্তক্ষরণের পরিমাণ বাড়লো না-কি কমলো তা দেখে পরবর্তী চিকিৎসা নির্ধারিত হবে।


এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের তিনতলায় চিকিৎসাধীন সাংবাদিক শরীফউদ্দিন সবুজ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য জাহাঙ্গীর আলমসহ আহতদের দেখতে গিয়ে মেয়র আইভী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর জরুরি ভিত্তিতে বিকেলে তাকে ঢাকার ল্যাবএইড হাসপাতালে আনা হয়।


পরে আইভীকে সিসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। পরে রাত সাড়ে ১১টায় আইভীর সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে ব্রিফিংকালে ল্যাবএইড হাসপাতালের কনসালটেন্ট কার্ডিওলজিস্ট ডা. আতিকুজ্জামান সোহেল জানান, মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে।

তিনি শঙ্কামুক্ত নন। ২৪ ঘণ্টার আগে তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে ঠিক কিছুই বলা যাবে না। তার মাথায় আঘাত রয়েছে। আর এই আঘাতজনিত কারণেই শঙ্কা রয়ে গেছে।


রক্তক্ষরণের কারণে ঝুঁকিও বাড়তে পারে বলে মত দেন এই চিকিৎসক।


প্রসঙ্গত, শহরে হকার উচ্ছেদ নিয়ে উত্তেজনার মধ্যে গত ১৬ জানুয়ারি চাষাঢ়ায় আওয়ামী লীগের স্থানীয় এমপি শামীম ওসমানের সমর্থকদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন মেয়র আইভীর সমর্থকরা। এতে মেয়র আইভী, সাংবাদিকসহ প্রায় শতাধিক ব্যক্তি আহত হন। তাদের আহত হওয়ার দুইদিন পর অসুস্থ হন মেয়র আইভী।

 

 


Top