১৩ সন্তানকে শেকলে বেঁধে রাখার অভিযোগে দম্পতি গ্রেপ্তার | daily-sun.com

১৩ সন্তানকে শেকলে বেঁধে রাখার অভিযোগে দম্পতি গ্রেপ্তার

ডেইলি সান অনলাইন     ১৭ জানুয়ারী, ২০১৮ ১১:১৮ টাprinter

১৩ সন্তানকে শেকলে বেঁধে রাখার অভিযোগে দম্পতি গ্রেপ্তার

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় নিজ বাড়িতে তালাবদ্ধ ঘরে ১৩ সন্তানকে শেকল দিয়ে বেঁধে রাখার অভিযোগে এক দম্পতিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ডেভিড অ্যালেন টারপিন ও তার স্ত্রী লুইসি আন্না টারপিন তাদের সন্তানদের বিছানার সঙ্গে শেকল ও তালা দিয়ে বেঁধে রেখেছিলেন। সোমবার তাদের মধ্যে একজন সেখান থেকে পালিয়ে পুলিশের জরুরি নম্বরে ফোন দিলে পুলিশ তাদেরকে উদ্ধার করে।

 

রিভারসাইড শেরিফের কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, ক্যালিফোর্নিয়ার রাজধানী লস অ্যাঞ্জেলেসের ৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে পেরিস শহরে ওই দম্পতির বাড়ি। তাদের সন্তানদের বয়স ২ থেকে ২৯ বছরের মধ্যে। সোমবার তাদের মধ্যে একজন সেখান থেকে পালিয়ে পুলিশের জরুরি নম্বরে ফোন দেয়। ওই বাড়ির ভেতরে সেলুলার ডিভাইস থেকে নম্বরটি পেয়েছিল সে।

 

অত্যন্ত রুগ্ন ১০ বছর বয়সি শিশুটি জানায়, তার ১২ জন ভাইবোনকে তাদের বাবা-মা বেঁধে রেখেছেন। পরে পুলিশ ওই বাড়িতে গিয়ে দেখে অন্ধকার ও দুর্গন্ধযুক্ত পরিবেশে বিছানার সঙ্গে তাদের শেকল ও তালা দিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছে। তবে কেন তাদের বেঁধে রাখা হয়েছে এর উত্তরে বাবা-মা সুস্পষ্ট যৌক্তিক কোনো কারণ দেখাতে পারেননি।

 

১৮ থেকে ২৯ বছরের ৭ জনকে এভাবে বেঁধে রাখতে দেখে তারা খুবই অবাক হয়েছেন। তারা অপুষ্টিতে ভুগছে এবং তাদের অপরিষ্কার রাখা হয়েছে। বর্তমানে তাদের সবাইকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

 

এদিকে ডেভিড অ্যালেন টারপিন ও তার স্ত্রী লুইসি আন্নাকে আদালতে সোপর্দ করা হলে বিজ্ঞ বিচারক তাদের ৯ মিলিয়ন ডলারের জামিননামা ধার্য করেন।

 


Top