হয়তো শীত চলে গেলে তারা শীতবস্ত্র নিয়ে হাজির হবেন: মায়া | daily-sun.com

হয়তো শীত চলে গেলে তারা শীতবস্ত্র নিয়ে হাজির হবেন: মায়া

ডেইলি সান অনলাইন     ৯ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৩:৫৮ টাprinter

হয়তো শীত চলে গেলে তারা শীতবস্ত্র নিয়ে হাজির হবেন: মায়া

 

বেসরকারি ব্যাংক, বীমা, রাজনৈতিক সংগঠন ও ব্যক্তির উদ্যোগকে ইঙ্গিত করে দুর্যোগ ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, হয়তো শীত চলে গেলে তারা শীতবস্ত্র নিয়ে হাজির হবেন। তিনি বলেন, চলমান শৈত্য প্রবাহে বেসরকারি উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণের আহ্বান জানিয়ে নিজেকে ছোট করতে চাই না।

আপনারা (সাংবাদিকদের) জানেন প্রতিবছর বিভিন্ন ব্যাংক, বীমা, রাজনৈতিক সংগঠন ও বিভিন্ন ব্যক্তির উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। এবার তা করা হচ্ছে না। হয়তো শীত চলে গেলে তারা শীতবস্ত্র নিয়ে হাজির হবেন।

 
শৈত্যপ্রবাহ মোকাবেলায় দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের মানবিক সহযোগিতা কার্যক্রম বিষয়ক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া এসব কথা বলেন।


তিনি বলেন, বেসরকারি উদ্যোগে শীতবস্ত্র যারা বিতরণ করেন তারা হয়তো এবার বুঝতেই পারেনি এতো শীত শুরু হবে। আমরা সরকারিভাবে বিষয়টি অনুধাবন করতে পেরেই এবার আগে থেকে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ভান্ডার থেকে মোট ২৮ লাখ কম্বল শীতার্তদের মাঝে বিতরণ করেছি।


‘ফলে সারাদেশে বিগত ৫০ বছরের রেকর্ড ভেঙ্গে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার শৈত্য প্রবাহ হলেও দেশের মানুষ বিপদে পড়েনি,’ বলেন মন্ত্রী।


তিনি আরো বলেন, ইতোমধ্যে শীতবস্ত্র ও শুকনো খাবার বিতরণে জেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে ২০ জেলায় মন্ত্রণালয় ও অধিদফতর থেকে ২০ জন কর্মকর্তাকে পদায়ন করা হয়েছে। তারা স্থানীয় প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে প্রয়োজনীয় সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন এবং শৈত্যপ্রবাহের সার্বিক পরিস্থিতি মন্ত্রণালয়কে অবহিত করবেন। শৈত্যপ্রবাহে প্রতিবন্ধী, বয়স্ক ও শিশুরা বেশি ঝুঁকিতে থাকেন। তাদের অধিক যত্ন নেওয়ার জন্য সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।


মন্ত্রী আক্ষেপ করে বলেন, দেশের এ অবস্থার মধ্যেও কিছু ক্ষমতাবিলাসী রাজনীতিবিদ, শীতার্ত মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে ঢাকায় বসে ফাঁকা আওয়াজ দিচ্ছেন। তারা শীতার্ত মানুষের জন্য মায়াকান্না না করে তাদের পাশে দাঁড়ান।


মায়া বলেন, দেশের সার্বিক শৈত্য প্রবাহের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও নির্দেশনা প্রদানের জন্য আমরা সরকারিভাবে একটি কন্ট্রোল রুম করেছি। সেখান থেকে সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করা হবে। এ কন্ট্রোল রুমের প্রধান সমন্বয়কারী হিসেবে থাকবেন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো: ফয়জুর রহমান। যাকে যেকোনো সময় ১০৭২৭২১২১৬৯ নম্বরে পাওয়া যাবে।


সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, যারা ইতোমধ্যে মারা গেছেন তারা কেউই শীতে মারা যায়নি। তারা কোনো না কোনো অসুস্থতার জন্য মারা গেছেন।

 


Top