সেই সুন্দরী পুলিশ অফিসার আসলে দিব্যা ভারতীর বোন | daily-sun.com

সেই সুন্দরী পুলিশ অফিসার আসলে দিব্যা ভারতীর বোন

ডেইলি সান অনলাইন     ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৭:১৫ টাprinter

সেই সুন্দরী পুলিশ অফিসার আসলে দিব্যা ভারতীর বোন

এই আপাত অপাপবিদ্ধ সুন্দরী সত্যিকারের কোনো পুলিশ অফিসার নন। দ্য গ্রেট গ্রান্ড মাস্তি ছবির নায়িকা কাইনাত অরোরা।

 তবে ইন্সটাগ্রামসহ সামাজিক মাধ্যমে পুলিশি পোশাকে এই স্মার্ট সুন্দরীর ভাইরাল হওয়া ছবি ব্যাপক আলোড়ন তুলেছে। প্রথম দিকে সাধারণ মানুষের অনেকেই ভাবতে পারেনি যে ইনি সত্যিকারের লেডি পুলিশ অফিসার নন।

 

সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই মজা করে ওই ছবিতে মন্তব্য করেছে- ‘আত্মসমর্পণ করলাম’, ‘গ্রেপ্তার হওয়ার অপেক্ষায় লাইন দিয়ে আছে লোকজন’ ইত্যাদি।  

 

দিব্যা ভারতীর বোন এই সুন্দরী ‘পুলিশ অফিসার’?

 

 

ভাইরাল হওয়া ছবিগুলোতে পাঞ্জাবি ফিল্ম জাগ্গা জুইয়ান্দাই-এ পুলিশের থ্রি স্টার র‌্যাঙ্কধারী কর্মকর্তা হারলিন মান চরিত্রে রূপদানকারী কাইনাতকে যে কী পরিমাণ মনোমুগ্ধকর লাগছে তা বলাই বাহুল্য।

 

উনিফর্মে নারীর এই রূপমাধ্যুর্যই বিমোহিত করেছে সবাইকে। কারণ, তারা চায় রাষ্ট্রের একজন জনসেবক কর্মচারীর বাস্তব রূপ এমনই হবে- স্বস্তিদায়ক, সুন্দর; কিন্তু কদর্য আর ভীতিকর নয়। তবে পুলিশি পোশাক ছাড়াও অন্যান্য বেশভূষায়ও কাইনাতকে সুন্দর কম দেখায় না।  

 

 


অনেকেই জানেন না যে তিনি একসময়কার লাস্যময়ী বলিউড কুইন দিব্যা ভারতীর জ্ঞাতী বোন। কাইনাতের রূপ-লাবণ্যও যে দিব্যার মতোই মারকাটারি টাইপের তা বলাই বাহুল্য। এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি হিন্দি সিনেমায় অভিনয় করেছেন যার মধ্যে রয়েছে খাট্টামিট্‌ঠা, ফারার ও সিক্রেট। ২০১১ সালে অভিনয় করেন মনকথা ছবিতে। একই বছর রামগোপাল ভার্মার সিক্রেটেও কাজ করেন।

এদিকে, ইন্সটাগ্রামে কাইনাত অরোরা জানিয়েছেন, পুলিশের পোশাকের ওই ছবি ভাইরাল হওয়ার পর মেসেজ আর পোস্টের বন্যায় ভেসে যাচ্ছি যেন... আমার ফোন মেমরি বিস্ফোরিত হওয়ার অপেক্ষায়... আমি সত্যিকারের পুলিশ নই।

 

এর ফলে একথা আবারও প্রমাণ হলো যে ইন্টারনেট জ্ঞান ও তথ্য আহরণের বিশাল ভাণ্ডার হলেও এর দ্বারা ভুয়া সংবাদ আর গুজব ছড়ানোর ঝুঁকিও মারাত্মক। কারণ, কারও ইচ্ছা বা অনিচ্ছাকৃতভাবে পোস্ট দেওয়া এমনসব তথ্যের সত্যাসত্য যাচাইয়ে সাধারণ লোকজন খুব একটা সময় খরচ বা চেষ্টা করতে চান না। ততক্ষণে অনেক অপূরণীয় ক্ষতির শিকার হয়ে যান অনেকেই। অনেক সময় নির্দোষ ছবি বা লেখাও নির্দোষ অনেকের জন্য হয়ে ওঠে ভয়াবহ পীড়াদায়ক। 

 

আরও পড়ুন 

পুলিশ অফিসারের ছবি দেখেই গ্রেফতার হওয়ার ভিড়


Top