৯৯৯ নম্বরে প্রথম দিনেই সার্ভিস পেলেন অনেকে | daily-sun.com

৯৯৯ নম্বরে প্রথম দিনেই সার্ভিস পেলেন অনেকে

ডেইলি সান অনলাইন     ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৭:০০ টাprinter

৯৯৯ নম্বরে প্রথম দিনেই সার্ভিস পেলেন অনেকে

‘শুভ সকাল, আসসালামু আলাইকুম। ’ বলতেই ফোনের অন্যপ্রান্ত থেকে এক সেবাপ্রত্যাশী বলেন, ‘এইটা পুলিশের নম্বার? আমার সাহায্য দরকার। আমি নদীতে আছি। লুট হইছে। পুলিশ পাঠান। ’ গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে যখন পুলিশের জাতীয় জরুরি সেবা ‘৯৯৯’ কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের প্রস্তুতি চূড়ান্ত তখনই কেন্দ্রে আসে ফোনটি। এরপর ফোনটি দ্রুত কল ডেসপাচারের কাছে হস্তান্তর করেন কল টেকার। পরে তত্ক্ষণাৎ ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

 

দুপুর ২টা ১০ মিনিটে ময়মনসিংহের পুরোহিতপাড়া থেকে আরেকটি কল আসে ৯৯৯ নম্বরে। এক সেবাপ্রত্যাশী বলেন, ‘দুই কক্ষের একটি বাসায় আগুন লেগেছে, দ্রুত ফায়ার সার্ভিসকর্মীদের পাঠান। ’ তখনই ময়মনসিংহ সদর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে বিষয়টি জানিয়ে দেন ৯৯৯ কল সেন্টারের সংশ্লিষ্ট কর্মী।

পরে তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, আগুনে কিছু আসবাবপত্র পুড়েছে, তবে কেউ হতাহত হয়নি।

 

 

গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ‘৯৯৯’ উদ্বোধনের দিনই সাধারণ ভুক্তভোগীদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া পড়ে যায়। সকাল ১১টার দিকে রাজধানীর আবদুল গণি রোডে পুলিশের ক্রাইম কন্ট্রোল অ্যান্ড কমান্ড সেন্টারে এই সেবার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। পরে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ৯৯৯ নম্বরে কল করে দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও অ্যাম্বুল্যান্স সম্পর্কিত জরুরি সেবা পাওয়া যাবে।

 

এখানে কল করার জন্য কোনো টাকা খরচ হবে না, এমনকি মোবাইল ফোনে টাকা না থাকলেও কল করা যাবে। আগে আইসিটি ডিভিশনের আওতায় এই সেবাটি থাকলেও গত ২৬ অক্টোবর থেকে পুলিশ পরীক্ষামূলকভাবে চালু করে।

 

গতকাল কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, উদ্বোধনের পরই ব্যাপক সাড়া পড়েছে। আগে ২৪ ঘণ্টায় গড়ে ১০ হাজার ফোন এলেও গতকাল বিকেল ৩টা ২১ মিনিটে সেই সংখ্যা দাঁড়ায় ৯ হাজার ৮৪৪। গতকাল দুপুর পর্যন্ত সাতটি সিএসএফ (কল ফর সার্ভিস) ক্লোজ বা সমাধান করা হয়েছে। এভাবে গত এক মাসে ১২২টি এবং এক সপ্তাহে ৪৯টি সমাধান করা হয়। সবচেয়ে বেশি সেবা ফায়ার সার্ভিসের। এক মাসে সমাধান করা কলের মধ্যে ২৮টি ছিল অগ্নিকাণ্ডসংক্রান্ত।

 

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, ৯৯৯ নম্বরটি অপ্রচলিত এবং জনসচেতনতার অভাবে অপ্রয়োজনীয় কলই বেশি আসছে। তবে সেবাপ্রার্থীদের কলগুলো তিনটি পর্যায়ে পাঁচ স্তরের পুলিশ সদস্যরা এই সেবা দিচ্ছেন। এখন দিনে ১৫ হাজারের বেশি ফোন আসবে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।  

 


Top