মার্কিন দূতাবাস ঘেরাওয়ে পুলিশের বাধা | daily-sun.com

মার্কিন দূতাবাস ঘেরাওয়ে পুলিশের বাধা

ডেইলি সান অনলাইন     ১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৩:১৮ টাprinter

মার্কিন দূতাবাস ঘেরাওয়ে পুলিশের বাধা

 

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের স্বীকৃতির প্রতিবাদে চরমোনাই পীরের দল ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনসহ তিনটি ইসলামিক দলের পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ঢাকায় মার্কিন দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে বাধা দিয়েছে পুলিশ। সোমবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর শান্তিনগরে তাদের বাধা দেওয়া হয়েছে।

এ সময় দলটি আগামী শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) সারাদেশের জেলায় জেলায় প্রতিবাদ বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা দেয়।


এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেট থেকে ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন, ইসলামী যুব আন্দোলন ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নামে তিনটি ইসলামিক দলের নেতাকর্মীরা মার্কিন দূতাবাস অভিমুখে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নেতাকর্মীরা।


এর আগে গত শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) জুমার নামাজের পর জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে বিক্ষোভ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। সংগঠনটি আগামী বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস ঘেরাওয়ের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। একই সঙ্গে ওই দিন বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে বিক্ষোভ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, ইসলামী ঐক্য আন্দোলন এবং বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিশ।  


প্রসঙ্গত, প্রসঙ্গত, জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আরব লিগ, সৌদি আরব, জর্ডান, তুরস্ক, ফ্রান্স এবং জার্মানিসহ বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার সতর্ক বাণী উপেক্ষা করেই বুধবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেন। সেইসঙ্গে তেলআবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তরেরও নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাম্প। ওয়াশিংটনের স্থানীয় সময় বুধবার (৬ ডিসেম্বর) দুপুরে হোয়াইট হাউজে কূটনীতিকদের অভ্যর্থনা কক্ষে এক ভাষণে ট্রাম্প বলেন, জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতির এটাই সময় বলে আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

ফলে ১৯৪৮ সালে ইসরায়েল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পর যুক্তরাষ্ট্রই হল প্রথম রাষ্ট্র যারা জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসাবে স্বীকৃতি দিল। আর তার এই ঘোষণার নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও জার্মানিসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ।


বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের নিন্দা জানানো হয়েছে এবং এই অঞ্চলের শান্তি নষ্টের গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। বিএনপি, জাতীয় পার্টি, ইসলামী দলগুলো ছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন থেকে ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।


এমনকি ইসরায়েলি দৈনিক হারেৎস এক সম্পাদকীয় নিবন্ধে মন্তব্য করেছে, এই সিদ্ধান্তে শুধু লাভ হলো ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু ও তার অতি কট্টরপন্থী সমর্থকদের।


এদিকে ট্রাম্পের ঘোষণার পর ইসরায়েলের বিরুদ্ধে নতুনভাবে ইন্তিফাদা বা অভ্যুত্থানের ঘোষণা দিয়েছে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্ত ফিলিস্তিনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার শামিল বলেও মনে করে সংগঠনটি।


১৯৪৮ সালে আরব-ইসরাইল যুদ্ধের পর জেরুজালেমের পশ্চিমাংশ দখল করে নেয়া হয়। পরে ১৯৬৭ সালে সিরিয়া, মিশর ও জর্ডানের সঙ্গে যুদ্ধের পর পূর্বাংশ দখল করে নেয় ইসরাইল। দখলের পর থেকেই ঐতিহাসিকভাবে পবিত্র এ শহরটিতে নিজেদের পুরো কর্তৃত্ব খাটানোর চেষ্টা করছিল ইসরাইল। এই ইস্যুতে অসংখ্যবার ইসরাইলি ও ফিলিস্তিনি, ইহুদি, খ্রিস্টান ও মুসলিমদের পবিত্র ভূমিতে আগুন জ্বলতে দেখে গেছে।


১৯৯০, ১৯৯৬, ২০০০ সালে এবং সম্প্রতি ২০১৭ সালে আল-আকসা মসজিদে প্রবেশের ক্ষেত্রে ফিলিস্তিনিদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ইসরাইলি পুলিশের মেটাল ডিটেক্টর বাসানোর জেরে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটেছে।
 

ট্রাম্পের বিতর্কিত ওই ঘোষণার পরই বিশ্বজুড়ে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসগুলোতে নিরাপত্তা বাড়ানোর নির্দেশ দেয় যুক্তরাষ্ট্র।

 


Top