আইকিউ টেস্টে আইনস্টাইনকেও টেক্কা দেয়া কে সেই বিস্ময় বালিকা? | daily-sun.com

আইকিউ টেস্টে আইনস্টাইনকেও টেক্কা দেয়া কে সেই বিস্ময় বালিকা?

ডেইলি সান অনলাইন     ১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২১:৩৮ টাprinter

আইকিউ টেস্টে আইনস্টাইনকেও টেক্কা দেয়া কে সেই বিস্ময় বালিকা?

ভারতীয় বংশোদ্ভূত এক ব্রিটিশ কিশোরী বিশ্বখ্যাত মেনসা আইকিউ টেস্টে ১৬২ পয়েন্ট পেয়েছে যা কি-না পৃথিবীর সর্বকালের সেরা বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইন এবং বর্তমানকালের সেরা বিজ্ঞান গবেষক স্টিফেন হকিংসের চেয়েও দু’পয়েন্ট বেশি।

 

ইংল্যান্ডের চেশায়ার কাউন্টির বাসিন্দা ১২ বছরের এই বিস্ময় বালিকার নাম রাজগুরু পাওয়ার। গত মাসে ম্যানচেস্টারে অনুষ্ঠিত মেনসা আইকিউ টেস্টে অংশগ্রহণ করে সে ১৬২ পয়েন্ট অর্জন করে যা কি-না ১৮ বছরের কম বয়সী কারও জন্য এ যাবত্কালের মধ্যে সর্বোচ্চ স্কোর।

 

এনডিটিভি’র রিপোর্ট অনুযায়ী রাজগুরু হচ্ছে মেনসা টেস্টে অংশগ্রহণকারী বিশ্বের মাত্র এক শতাংশ বা ২০ হাজার জিনিয়াসদের একজন যারা ১৪০-এর উপর স্কোর করতে সক্ষম হয়েছে। এনডিটিভিকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে আইকিউ টেস্টে আইনস্টাইন ও স্টিফেন হকিংসের মত সেরা জিনিয়াসদের হারিয়ে দেওয়া রাজগুরু বলে, “মেনসা টেস্ট দেওয়ার আগে আমি কিছুটা নার্ভাস ছিলাম তবে টেস্টে ভালোভাবে উতরে যাওয়ায় আমি খুব খুশি। টেস্ট দেওয়ার সময়টাতে আমি যুক্তরাজ্যের বিখ্যাত অ্যালট্রিনচ্যাম গার্লস গ্রামার স্কুলে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। মেনসা টেস্টটা আমার জন্য খুব চ্যালেঞ্জিং ছিল। এর শুরুটা কিছুটা সহজ হলেও শেষটা বেশ কঠিন ছিল। তবে সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং ছিল নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সব প্রশ্নের ঠিকঠাক জবাব দেওয়া। ”

 

আর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে এই বিস্ময় বালিকা বলে, “মনে হচ্ছে আমি যেন ‘টপ অফ দ্য ওয়ার্ল্ড’-এ আছি। এই আনন্দের অনুভূতি আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না।

বিদেশের মাটিতে ভারতের প্রতিনিধি হিসেবে এই সাফল্য পাওয়া আমার জন্য খুবই গর্বের। ” পড়ালেখার বাইরে সাঁতার কাটতে ও দাবা খেলতে ভালোবাসে সে। ভবিষ্যতে তার ডাক্তারি পড়ার ইচ্ছা। তবে পদার্থবিদ্যা, মহাকাশ ও পরিবেশ বিজ্ঞান নিয়েও গবেষণা করার ইচ্ছা রয়েছে রাজগুরুর। মেনসা টেস্টে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করায় তাকে বিশ্ব জিনিয়াসদের সংগঠন- হাই আই কিউ সোসাইটি তাদের সদস্য হওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছে।

 

রাজগুরু পাওয়ারের বাবা ড. সুরাজকুমার পাওয়ার ম্যানচেস্টার ইউনিভার্সিটির একজন রিসার্চ সাইন্টিস্ট। তার পৈত্রিক নিবাস ভারতের পুনা জেলার বড়মাটি এলাকায়। মেয়ের সাফল্যে দারুণ উচ্ছ্বসিত তিনি। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে তিনি বলেন, “আমার মেয়ে এখন বিশ্বের মাত্র এক শতাংশ সেরা জিনিয়াসদের একজন। ওর জন্য আমি গর্ববোধ করি। ”                   

 

সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে


Top