রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে ইইউসহ ৩ দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা | daily-sun.com

রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে ইইউসহ ৩ দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা

ডেইলি সান অনলাইন     ১৯ নভেম্বর, ২০১৭ ১৩:২৮ টাprinter

রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে ইইউসহ ৩ দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা

 

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির সেনাবাহিনীসহ বিভিন্ন বাহিনীর হাতে নির্যাতনের শিকার হয়ে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে কক্সবাজার পৌঁছেছেন জাপান, জার্মান ও সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) পররাষ্ট্র বিষয়ক প্রধান ফেদেরিকো মঘেরিনি তাদের সঙ্গে রয়েছেন।

 

রবিবার (১৯ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে কক্সবাজার থেকে মেরিন ড্রাইভ সড়ক দিয়ে উখিয়ার ইনানী হয়ে কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৌঁছান তারা।


পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিনিধিদলের সদস্যরা হলেন- ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতি বিষয় উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি এবং ইউরোপীয় কমিশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফেদেরিকো মঘেরিনি, জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গ্যাব্রিয়েল, সুইডেনের মারগট ওয়ালস্টার ও জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কানোসহ সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তারা।


প্রথমে  তারা কুতুপালং ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। পরে মিয়ানমার থেকে নির্যাতনের শিকার হয়ে পালিয়ে এসে ক্যাম্পে বসবাসরত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলে তাদের দুঃখ-দুর্দশার কথা শোনেন।


উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আন্তর্জাতিক অভিবাসন কেন্দ্র আইওএমের প্রাথমিক চিকিৎসাসেবা কেন্দ্র ও জরুরি ত্রাণ বিতরণ কেন্দ্রসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন প্রতিনিধিদলের সদস্যরা।


এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ)  টিমের সঙ্গে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র সচিবসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।


এর আগে বেলা ১১টা ২০ মিনিটের দিকে তাদের  বহনকারী হেলিকপ্টারটি কক্সবাজার বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এর পর তারা বিশেষ বাসে উখিয়া ও টেকনাফের বালুখালী, কুতুপালং ক্যাম্প পরিদর্শনের উদ্দেশে রওনা দেন।


এর আগে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর নেতৃত্বে কক্সবাজারের উদ্দেশে তাদের বহনকারী হেলিকপ্টারটি তেজগাঁও বিমানঘাঁটি ত্যাগ করে।


পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের বালুখালী, কুতুপালংসহ বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করবেন তারা। এ সময় রোহিঙ্গাদের দুর্দশার কথা শুনবেন এ বিদেশি মন্ত্রীরা।


ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে বিকালে অতিথিদের নিয়ে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ফিরবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।


পরে রাতেই ২০ ও ২১ নভেম্বর মিয়ানমারের নেইপিদোতে অনুষ্ঠেয় আসেম সম্মেলনে যোগ দিতে ঢাকা ত্যাগ করবেন তারা। ওই সম্মেলনে যোগ দেবেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলীও।  


কক্সবাজার রওনা দেয়ার আগে সকাল ৮টায় সফররত জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কোনোর সঙ্গে ঢাকায় দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন মাহমুদ আলী।

 


Top