লেকহেড গ্রামার স্কুল খুলে দেওয়ার আদেশ স্থগিত, পরবর্তী শুনানির ৩০ নভেম্বর | daily-sun.com

লেকহেড গ্রামার স্কুল খুলে দেওয়ার আদেশ স্থগিত, পরবর্তী শুনানির ৩০ নভেম্বর

ডেইলি সান অনলাইন     ১৯ নভেম্বর, ২০১৭ ১২:৫৭ টাprinter

লেকহেড গ্রামার স্কুল খুলে দেওয়ার আদেশ স্থগিত, পরবর্তী শুনানির ৩০ নভেম্বর

 

ধর্মীয় উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদে পৃষ্ঠপোষকতার অভিযোগে রাজধানীর ধানমন্ডি ও গুলশানের লেকহেড গ্রামার স্কুলের বন্ধ করে দেয়া শাখা দুটি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে খুলে দেওয়ার নির্দেশ সংক্রান্ত হাইকোর্টের আদেশ আগামী ১০ দিনের জন্য স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ৩০ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

 

রবিবার (১৯ নভেম্বর) ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের আপিল বেঞ্চ এই আদেশ দেন।


আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এ সময় রিটকারীদের পক্ষে শুনানি করেন এএফ হাসান আরিফ ও ব্যারিস্টার আকতার ইমাম।


এর আগে গত ১৪ নভেম্বর হাইকোর্টের বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ স্কুলটি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে খুলে দেওয়ার আদেশ দিয়েছিলেন। একইসঙ্গে স্কুলটির বিরুদ্ধে নতুন করে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ এলে তা তদন্তে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সহায়তা করতে বাধ্য থাকবে স্কুলটি।
 

 

এর আগে গত ৬ নভেম্বর ধানমন্ডি ও গুলশানের দুটি শাখাসহ লেকহেড স্কুলের সব শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ করার নির্দেশ দেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সালমা জাহান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে ঢাকা জেলা প্রশাসককে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়। চিঠিতে বলা হয়, এই প্রতিষ্ঠানটি সরকারের অনুমোদন নেয়নি। 
 

প্রতিষ্ঠানটি ধর্মীয় উগ্রবাদ, উগ্রবাদী সংগঠন সৃষ্টি, জঙ্গি কার্যক্রমের পৃষ্ঠপোষকতাসহ স্বাধীনতার চেতনাবিরোধী কর্মকাণ্ডে যুক্ত বলে ওই চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।


পরে স্কুল বন্ধের নোটিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা হলে গত ৯ নভেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডি ও গুলশানের দুটি শাখাসহ লেকহেড গ্রামার স্কুলের সব শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ করা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। শিক্ষাসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব, ঢাকার জেলা প্রশাসক ও মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।


রুলে হাইকোর্ট প্রশ্ন করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থাকতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় স্কুল-কলেজ বন্ধ করার কে? সেই সঙ্গে শিগগিরই কেন স্কুল খুলে দেয়া হবে না এবং বন্ধের আদেশ কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তাও জানতে চান আদালত। সেই রুলের শুনানি শেষে আজ রায়ের দিন ধার্য্য করেছিলেন হাইকোর্ট।
 

 

ওইদিন সকালে লেকহেড গ্রামার স্কুলের নতুন মালিক খালেদ হাসান মতিন ও ১২ জন শিক্ষার্থীর অভিভাবকের পক্ষে ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম রিটটি দায়ের করেছিলেন।


জানা গেছে, এ প্রতিষ্ঠানটির মূল উদ্যোক্তা ও পৃষ্ঠপোষক রেজোয়ান হারুন সম্প্রতি লন্ডন থেকে ঢাকায় এসে লাপাত্তা হয়ে যান। এখনও পর্যন্ত তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। রেজোয়ান হারুনের বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদে অর্থায়ন ও মদদের অভিযোগ রয়েছে। চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিবেদনে রেজোয়ান হারুনকে আইনের আওতায় আনার নির্দেশনা দেয়া হয়। ২০০৬ সালে ধানমন্ডির ৬/এ সড়কে প্রতিষ্ঠিত হয় লেকহেড গ্রামার স্কুল। গুলশানে এই স্কুলের আরও দুটি শাখা আছে।

 


Top