নিজের গাওয়া ‘ফেসবুক’ গানে মডেল হলেন নচিকেতা | daily-sun.com

নিজের গাওয়া ‘ফেসবুক’ গানে মডেল হলেন নচিকেতা

ডেইলি সান অনলাইন     ১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ১৪:০৪ টাprinter

নিজের গাওয়া ‘ফেসবুক’ গানে মডেল হলেন নচিকেতা

 

 

নচিকেতা চক্রবর্তী। জীবনমুখী বাংলা গানের সবচেয়ে জনপ্রিয় শিল্পী। বাংলা গানের ভক্তরা সবাই জানেন কোলকাতার এই কণ্ঠশিল্পীর কথা। বাংলা গানকে তিনি নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। নতুন খবর হলো ‘ফেসবুক’ শিরোনামে নিজের গাওয়া একটি গানে তিনি মডেল হয়েছেন। আর গানটি লিখেছেন বাংলাদেশের তরুণ লেখক উদয় হাকিম। ‘ফেসবুক’ গানটির সুরও করেছেন নচিকেতা। সংগীতায়োজনে ছিলেন কোলকাতার আরেক বিখ্যাত মিউজিশিয়ান গুরু চরণ।

গানটি নিয়ে মিউজিক ভিডিও তৈরি হয়েছে। যেটি পরিচালনা করেছেন বাংলাদেশের তরুণ নির্মাতা মোহাম্মদ উল্ল্যাহ নান্টু।  শ্যুটিং হয়েছে গঙ্গা নদীর তীরসহ কোলকাতার বিভিন্ন লোকেশনে। ১৫ নভেম্বর বুধবার গানটি ইউটিউবে বাজনা চ্যানেলে প্রকাশিত হয়েছে। মিউজিক ভিডিওতে প্রধান মডেল আছেন নচিকেতা নিজেই। মডেল হিসেবে আরো আছেন বাংলাদেশের আমিন রানা এবং কোলকাতার লিজা কানুনগো।

 

 

এ বিষয়ে গীতিকার উদয় হাকিম ১৬ অক্টোবর তার ফেসবুক অ‌্যাকাউন্টে একটি পোস্ট দিয়েছেন। ওই পোস্ট সূত্রে জানা গেছে, গানটি মূলত তার লেখা একটি ধারাবাহিক নাটকের সূচনা সংগীত (টাইটেল সং) হিসেবে লেখা হয়েছে। নাটকের নামও ফেসবুক। খুব শিগগিরই এ নাটকের শ্যুটিং শুরু হবে। এছাড়াও, উদয় হাকিমের লেখা গান নিয়ে নতুন একটি এ্যালবামের কাজ করছেন নচিকেতা।

বৃহস্পতিবার নিজের ফেসবুকে গানটির মিউজিক ভিডিও পোস্ট করে উদয় হাকিম আরো জানান, কীভাবে গানটির সঙ্গে যুক্ত হলেন নচিকেতা। উদয় হাকিমের ফেসবুক থেকে তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে দেয়া হলো।

 

 

“অভিনেতা রানা এক সকালে অফিসে এসে বললেন, একটা ধারাবাহিক নাটকের স্ক্রিপ্ট দেন। কর্পোরেট জব করে এখন আর স্ক্রিপ্ট লেখার সময় কই? একটা সময় স্ক্রিপ্ট লিখেছি, নির্দেশনাও দিয়েছি। এখন পারব না। রানা নাছোড়বান্দা। একদিন নিয়ে আসলেন পরিচালক মোহাম্মদ উল্ল্যাহ নান্টুকে। উনি পরিচালনা করবেন, একটা স্ক্রিপ্ট লিখতেই হবে। তৎক্ষনাৎ বলে ফেললাম একটা সিনোপসিস। পছন্দ হয়ে গেলো। নাটকের নাম ফেসবুক। লিখতে শুরু করলাম। এক সকালে বাসা থেকে অফিসে আসার পথে গাড়িতে বসেই লিখে ফেললাম নাটকের টাইটেল সং। ঢাকার এক শিল্পীকে দিয়ে গাওয়ানো হলো। কিন্তু পছন্দ হলো না। বললাম, এটা কেবল নচিকেতা চক্রবর্তী গাইলেই পারফেক্ট হতে পারে। রানা আর নান্টু গেলেন কোলকাতা। নচিকেতা জানালেন, তিনি অন্যের গান করেন না। স্ক্রিপ্ট দেখানো হলো। পছন্দ করলেন। গাইলেন। দারুণ গেয়েছেন!

 

 

পরে অবশ্য আমার লেখা গান নিয়ে একটা এ্যালবাম করার প্রস্তাব দেন নচি’দা। আমি ধন্য; সেটির কাজ চলছে। তারপর আরেক দফা কোলকাতা গিয়ে ভিডিওগ্রাফ্রিও করে ফেললেন রানা-নান্টু জুটি। ভিডিওটা খুব একটা পছন্দ না হলেও এটা আমার জন্য বিরাট কিছু। কারণ এখানে মডেল হয়েছেন আমার প্রিয় গায়ক নচিকেতা নিজেই। এদিকে নাটকের ২৬ পর্বের স্ক্রিপ্ট লেখা শেষ। ঢাকার একটি টিভি চ্যানেলের সঙ্গে কথাও হয়েছে। অপেক্ষা শুধু ওয়ার্ক অর্ডারের। সেটি পেলেই নাটকের শ্যুটিং শুরু হবে। নাটকটিতে বেশ কিছু চমক থাকছে। সেটুকু রানা-নান্টু বলবে।”

 

 

 


Top