নিউক্লিয়ার অস্ত্রের শক্তিতে বিশ্বের শীর্ষ ১০ দেশ | daily-sun.com

নিউক্লিয়ার অস্ত্রের শক্তিতে বিশ্বের শীর্ষ ১০ দেশ

ডেইলি সান অনলাইন     ১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ২০:১৪ টাprinter

নিউক্লিয়ার অস্ত্রের শক্তিতে বিশ্বের শীর্ষ ১০ দেশ

গোটা বিশ্বে ভীতি ছড়িয়ে দেয় নিউক্লিয়ার অস্ত্রের খবর। কোনো দেশই চায় না যুদ্ধে জড়াতে।

 

আবার জড়ালেও নিউক্লিয়ার অস্ত্রের ব্যবহার করা হোক, তা কেউ-ই চায় না। হিরোশিমা এবং নাগাসাকির ক্ষত এখনও কাটেনি। এ ক্ষত সারে না কখনও। তবুও বিশ্বে নিউক্লিয়ার দেশগুলোকেউ অন্যদের চেয়ে শক্তিশারী ধরা হয়। বিশ্ব রাজনীতিতে ক্ষমতার লড়াই তাই অনেক দেশকেই এই বিধ্বংসী অস্ত্রের মালিক হতে উৎসাহ জোগায়। এখানে দেখে নিন, নিউক্লিয়ার অস্ত্রধারী সবচেয়ে ক্ষমতাশালী দেশগুলোর সেরা দশের তালিকা। 

 

১০. ইরান : দশম অবস্থানে রয়েছে ইরান। বিভিন্ন প্রতিবেদন এবং গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, ব্যাপক বিধ্বংসী নিউক্লিয়ার অস্ত্র রয়েছে ইরানে। কিন্তু কতগুলো আছে তা কেউ জানে না।

 

সম্প্রতি অবশ্য তারা আমেরিকার সঙ্গে এসব অস্ত্র ধ্বংসের চুক্তি সম্পাদনের চেষ্টা করছে। 

 

৯. উত্তর কোরিয়া : দেশটির সঙ্গে বেশ কয়েকটি পরাশক্তির ঝামেলা দিন দিন বেড়েই চলেছে। আতঙ্কের বিষয় হলো, পৃথিবী থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন দেশটি নিউক্লিয়ার অস্ত্রের মালিক। ধীরে ধীরে তারা এই অস্ত্র বানানোর শিক্ষা অর্জন করে তা বানিয়েও ফেলেছে। বিভিন্ন প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বলা হয়, দেশটি প্রায় ১০টি অস্ত্রের মালিক। 

 

৮. ইসরায়েল : এটা কোনো গোপন খবর নয় যে তারা নিউক্লিয়ার অস্ত্রের মালিক। প্যালেস্টাইনের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে চলমান লড়াইকে কেন্দ্র করে তারা নিউক্লিয়ার অস্ত্র বানিয়েছে। দেশটির অধীনে রয়েছে ৮০টি নিউক্লিয়ার অস্ত্র। সাবমেরিন বা ব্যালেস্টিক মিসাইলের মাধ্যমে নিউক্লিয়ার বোমা ছুড়তে সক্ষম তারা। প্রতিরক্ষা বাহিনীর দিক থেকেও তারা বিশ্বের সেরাদের একটি। 

 

৭. ভারত : প্রতিবেশী পাকিস্তানের সঙ্গে দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব তাদের। কাজেই নিউক্লিয়ার অস্ত্র বানাতে মন দেয় তারা। সেই ষাটের দশকেই এটি বানিয়েছে তারা। ভারত ৯০টিরও বেশি নিউক্লিয়ার অস্ত্রের অধিকারী। তবে এটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে নেতিবাচক নীতি গ্রহণ করেছে তারা। 

 

৬. ফ্রান্স : অভ্যন্তরীন এবং বাইরের সন্ত্রাস গ্রুপের একের পর এক আক্রমণ সামলাতে হয় দেশটির। তারা গড়ে তুলেছে মহা ক্ষমতাধর সেনাবাহিনী। নিউক্লিয়ার অস্ত্রধারী দেশগুলোর মধ্যে তারা শীর্ষ পর্যায়ে রয়েছে। তাদের কতগুলো অস্ত্র রয়েছে তা কেউ বলতে পারে না। 

 

৫. গ্রেট ব্রিটেন : তাদের নিউক্লিয়ার বোমা রয়েছে ৫০০টিরও বেশি। পরীক্ষা চালিয়েছে ৪৫ বারেরও বেশি। ১৯৫৬ সালে তারা প্রথম নিউক্লিয়ার পাওয়ার স্টেশন স্থাপন করে। এই মুহূর্তেও তাদের ২১৫টি নিউক্লিয়ার ওয়ারহেড সক্রিয়া অবস্থায় রয়েছে। 

 

৪. পাকিস্তান : সেই একই কারণ, ভারতের কথা মাথায় রেখে নিউক্লিয়ার অস্ত্র তৈরি করেছে এই দেশ। ভারতের পর পরই সত্তরের দশকে তারা অস্ত্র বানানো শুরু করে। পাকিস্তান গুটিকয়ের ইসলামির দেশের একটি যারা নিউক্লিয়ার অস্ত্রের দিক থেকে দারুণ শক্তিশালী হয়ে উঠেছে। 

 

৩. চীন : স্বাধীন হওয়ার ১৫ বছরের মধ্যে নিউক্লিয়ার অস্ত্রের মালিক বনে যায় চীন। বিশ্বের ক্ষমতাশারী দেশগুলোর একটি। তিন শতাধিক অস্ত্র রয়েছে তাদের ভাণ্ডারে। তবে তারা 'প্রথমে ব্যবহার নয়' নীতি গ্রহণ করেছে। 

 

২. আমেরিকা : নিউক্লিয়ার অস্ত্রের ক্ষমতার ভিত্তিতে আমেরিকা রয়েছে তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে। বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী দেশ হিসেবে আমেরিকা কর্তৃত্ব করে যাচ্ছে। তাদের আছে বিপুল পরিমাণ নিউক্লিয়ার ওয়ারহেড। প্রতিরক্ষায় তারা অতুলনীয়। 

 

১. রাশিয়া : আমেরিকা যেহেতু দ্বিতীয়তে, কাজেই নিউক্লিয়ার অস্ত্রের দিক থেকে শীর্ষে আসে রাশিয়ার নাম। কয়েক হাজার নিউক্লিয়ার ওয়ারহেড রয়েছে তাদের দেশে। এমনিতেও বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশের একটি। এ ছাড়াও অন্যান্য অস্ত্রের দিক থেকে তারা সবচেয়ে বড় উৎপাদক হিসেবে বিবেচিত। গুণগত মানের দিক থেকে রাশিয়ার অস্ত্র বিশ্বসেরা। 

 

সূত্র : ইয়র্ক ফিড


Top