মাঝ আকাশে স্বামীর পরকীয়া ধরে হৈহল্লা | daily-sun.com

মাঝ আকাশে স্বামীর পরকীয়া ধরে হৈহল্লা

ডেইলি সান অনলাইন     ৯ নভেম্বর, ২০১৭ ১৬:৪২ টাprinter

মাঝ আকাশে স্বামীর পরকীয়া ধরে হৈহল্লা

দোহা থেকে বালি, লম্বা পথ। উড়োজাহাজে ওঠার পর বেশ নিশ্চিন্তেই তাই ঘুমিয়ে পড়লেন স্বামী। হঠাৎই চিৎকার-চেঁচামেচি। ভেঙে গেল ঘুম। এরপর যা দেখলেন তাতে চক্ষু চড়কগাছ। স্ত্রীর হাতে তারই স্মার্টফোন। সেই স্মার্টফোন ঘেঁটে তার অবৈধ প্রেমের সম্পর্কের কথা জেনে গিয়েছেন স্ত্রী। সেজন্যই হল্লা বাঁধিয়েছেন তিনি। 

 

স্বামী-স্ত্রীর এই ঝগড়ায় পুরো উড়োজাহাজের যাত্রীদের কান ঝালাপালা দশা। চিৎকার-চেঁচামেচিতে অনেকের কানের ফর্দা ফেটে যাওয়ার যোগাড়। ফ্লাইটের ক্রুরা দু’জনকে শান্ত করার চেষ্টা করলেও ফল এলো না। শেষ মেষ মাঝপথে চেন্নাই বিমানবন্দরে নামিয়ে দেওয়া হলো দু’জনকেই।

 

গত রোববার (৫ নভেম্বর) কাতারের দোহা থেকে ইন্দোনেশিয়ার বালিগামী কাতার এয়ারওয়েজের কিউ-আর৯৬২ ফ্লাইটের যাত্রীরা প্রত্যক্ষ করেছেন এই ঘটনা। আর যারা ঘটিয়েছেন, সেই দম্পতি ইরানি। সঙ্গে ছিল তাদের সন্তানও।

 

ওই ফ্লাইটের একজন কর্মী পুরো ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বলেন, উড়োজাহাজ উড্ডয়নের ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই ঘুমিয়ে পড়েন স্বামী। ব্যক্তিগত নিরাপত্তার কারণে তার স্মার্টফোন ছিল স্ক্রিন লক করা। কিন্তু ঘুমের সুযোগে তার আঙুলের ছাপ দিয়ে তা আনলক করে ফেলেন স্ত্রী। এরপর স্মার্টফোন ঘেঁটে দেখেন, অন্য এক নারীর সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে তার স্বামীর। আর তাতেই তেলে-বেগুনে জ্বলে ওঠেন তিনি। 

 

 ফ্লাইটের এক যাত্রী জানান, তাদের ঝগড়া থামাতে যাত্রী-ক্রুরা শত চেষ্টা করেও কোনো ফল পাননি। অবস্থা বেগতিক দেখে অন্য যাত্রীদের চাপে ফ্লাইট মাঝপথেই চেন্নাইতে জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন পাইলট।

 

চেন্নাই বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, চেন্নাইতে নামার পর ওই দম্পতি আর বালিতে না গিয়ে দোহায় ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু ভারতীয় ভিসা না থাকায় বিপাকে পড়তে হয় তাদের। পরে তাদের কুয়ালালামপুরগামী একটি ফ্লাইটে তুলে দেওয়া হয়। সেখান থেকেই দোহার দিকে যাবেন তারা।

 

দম্পতির পরিচয় গোপন রাখলেও কাতার এয়ারওয়েজের ফ্লাইটটির এক কর্মী বলেন, ওই নারী সম্ভবত মদ্যপ অবস্থায় ফ্লাইটে উঠেছিলেন। সেজন্য তিনি এমন অস্বাভাবিক আচরণ করেছেন।

 


Top