ক্ষতস্থানে তুলো থেকেও হতে পারে মারাত্মক বিপদ | daily-sun.com

ক্ষতস্থানে তুলো থেকেও হতে পারে মারাত্মক বিপদ

ডেইলি সান অনলাইন     ২০ অক্টোবর, ২০১৭ ১৫:১০ টাprinter

ক্ষতস্থানে তুলো থেকেও হতে পারে মারাত্মক বিপদ

কেটে-ছড়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে ডেটল, তুলো, ব্যান্ডেড এগুলোতেই টান দিই আমরা। কারণ ঘরে সাধারণত এগুলোই মজুত থাকে।

ক্ষতস্থান পরিষ্কার করতে বা রক্ত মুছতে তুলোর ব্যবহার সকলেই করে থাকি। তবে দ্য হেলথসাইট ডট কম নামের একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, সাম্প্রতিক এক গবেষণা জানাচ্ছে, কেটে-ছড়ে গেলে ক্ষতস্থানে তুলো দেওয়া উচিত হবে না। এতে বড় বিপদ ঘটতে পারে। মূলত যে দু’টি কারণের জন্য বিশেষজ্ঞরা ক্ষতস্থানে তুলো দিতে বারণ করছেন, সেগুলো হল—

 

 

ক্ষতস্থানে তুলো দিলে তাতে অনেক সময়ে তুলোর রোঁয়া আটকে যায়। বহুক্ষেত্রে পরেও এগুলো ক্ষতস্থান থেকে আলাদা করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। এমনকী, চিকিৎসকদেরও তুলোর রোঁয়া আলাদা করতে গিয়ে কালঘাম ছুটে যায়। ওই রোঁয়া থেকে পরে ইনফেকশন হতে পারে। তাই রক্ত বন্ধ করতে বা পরিষ্কার করতে তুলোর বদলে সেখানে গজ দেওয়াই ভাল।

 

 

যদি ফার্স্ট এড বক্সে আলাদা করে পরিষ্কার তুলো রাখা থাকে, সেক্ষেত্রে তুলোর ব্যবহার করলে অসুবিধে নেই।

কিন্তু বহুক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, ঘরের অপরিচ্ছন্ন জায়গায় তুলো রাখা থাকে। দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহার না হওয়ার ফলেই তাতে ময়লা ধরে যায়। সেই নোংরা তুলো ক্ষতস্থানে দিলে বিপদ বাড়বে বই কমবে না। তাই তুলোর ব্যবহার করার সময়ে পরিচ্ছন্নতার বিষয়েও সচেতনতা দরকার।  

 

 

স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন এসে যায়, কেটে-ছড়ে গেলে তবে করণীয় কী। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, যে কোনও ধরনের ইনজুরির ক্ষেত্রেই প্রথমে ক্ষতস্থানটিকে জল দিয়ে ধুয়ে নিন। সম্ভব হলে বরফও দিন। এতে রক্তক্ষরণের পরিমাণ কিছুটা হলেও কমবে। এরপর সম্ভব হলে গজ দিয়ে মুছে নিন। গজ না থাকলে জল শুকিয়ে আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এর পর ওই জায়গাতে কোনও ওষুধ লাগিয়ে নিতে পারেন, যাতে রক্তক্ষরণ বন্ধ হয়। আর ইনফেকশনের সমস্যাও না থাকে। ঘরে থাকলে স্থানটি খোলা রাখতে পারেন, তবে বাইরে গেলে অবশ্যই ব্যান্ডেড দিয়ে ঢেকে রাখার চেষ্টা করুন।

 

প্রসঙ্গত, যদি দেখেন ১০ মিনিট কেটে যাওয়ার পরেও কোনওভাবেই রক্তক্ষরণ কমছে না, সেক্ষেত্রে দেরি না করে চিকিৎসকের কাছে যান। ঘরোয়া উপায় পরখ করতে গিয়ে বিপদ বাড়ানো বুদ্ধিমানের কাজ হবে না।

 


Top