শুনুন যৌন উন্মাদগ্রস্ত ‘ধর্মগুরু’ রাম রহিমের নতুন কেচ্ছা!‍ | daily-sun.com

শুনুন যৌন উন্মাদগ্রস্ত ‘ধর্মগুরু’ রাম রহিমের নতুন কেচ্ছা!‍

ডেইলি সান অনলাইন     ১১ অক্টোবর, ২০১৭ ১৫:১৩ টাprinter

শুনুন যৌন উন্মাদগ্রস্ত ‘ধর্মগুরু’ রাম রহিমের নতুন কেচ্ছা!‍

ডেরা প্রধান গুরমিত রাম রহিমের যৌন উন্মত্ততা নিয়ে এর আগে অনেকেই মুখ খুলেছেন। নারী দেখলে লোভ সামলাতে পারত না সে। ডেরায় নারীদের ধরে ধরে নিজের শিকার বানাত সে। এবার সামনে এলো তার আর এক কেচ্ছার খবর।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডেরা সাচার এক কর্মী সম্প্রতি জানিয়েছেন, করবা চৌথের দিন ডেরা সাচায় ব্রত রাখা নারীদের নিয়ে বসত রাম রহিম। এই ব্রতে সন্ধ্যাবেলায় চাঁদের দিকে তাঁকিয়ে প্রার্থনা করে তারপরে স্বামীর মুখ দেখতে হয়। সেখানে ডেরায় চাঁদের বদলে সকলকে রাম রহিমের মুখ দেখতে হতো। তারপর ব্রত ভাঙতেন নারীরা। এই প্রথার মাধ্যমে ডেরায় নারীদের নিজের কাছাকাছি ধরে রাখতে শুরু করেছিল রাম রহিম। নিজের স্বামীর মুখ ও চাঁদ দেখার বদলে রাম রহিমের মুখ দেখতে হতো নারীদের। 

 

পাশাপাশি ডেরার প্রাক্তন কিছু সদস্যের অভিযোগ, রাম রহিম ডেরার কমবয়সী মেয়েদেরও ধরে ধরে করবা চৌথ ব্রত রাখতে বাধ্য করত। সারাদিন উপোস করিয়ে চালনি দিয়ে চাঁদের বদলে নিজের মুখ দেখতে বাধ্য করত। অর্থাৎ ঘুরিয়ে ব্রত করানোর টোপ দিয়ে নারীদের কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করত রাম রহিম। 

 

এদিকে জানা গেছে, রাম রহিমকে বাবা বলে দাবি করলেও প্রতিবছর তার জন্য করবা চৌথ করতেন হানিপ্রীত। এবার করবা চৌথের দিন পুলিশ কর্মীরা হানিপ্রীতকে খাবার দিতে গেলে সে তা নিতে অস্বীকার করে। এবং জানায়, সে উপবাসে রয়েছে। সেই সঙ্গে সে একথাও জানায় যে, তার ‘পাপা’-র জন্যই এই উপবাস।কারণ, তিনি সারা পৃথিবীরই ‘স্বামী’।

 

হানিপ্রীতের বক্তব্য অনুযায়ী, ডেরা সচ্চা সওদায় বিপুল সমারোহ সহকারে করবা চৌথ উদযাপিত হতো। রাম রহিমের মুখ দেখেই মহিলারা তাঁদের উপবাস ভঙ্গ করতেন। আর কেবল মহিলারা নন, পুরুষরাও নাকি বাবার জন্য করবা চৌথের উপবাস করতেন। বিবাহিতাদের সঙ্গে অবিবাহিতারাও উপবাসে সামিল হতো।


Top