জোড়ায় জোড়ায় খেলা হতো ডেরায়! | daily-sun.com

জোড়ায় জোড়ায় খেলা হতো ডেরায়!

ডেইলি সান অনলাইন     ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৪:৪৪ টাprinter

জোড়ায় জোড়ায় খেলা হতো ডেরায়!

 

অদ্ভুত রকমের খেলার আয়োজন করেছিল ভণ্ডবাবা। সেই খেলায় শুধু অমশ নিতে পারতো ডেরার দম্পতিরা। কী খেলা চলত!


দুই সাধ্বীকে ধর্ষণের অভিযোগে আপাতত জেলের ঘানি পিষছে বাবা রাম রহিম সিংহ। কিন্তু তা সত্ত্বেও একের পরে এক তথ্য উঠে আসছে এই ভণ্ডবাবা সম্পর্কে। এবারে জানা গেল, নিজের ডেরার গুপ্ত গুহায় ‘বিগ বস’-এর মতো শো-এর ব্যবস্থা করত রাম রহিম। এই শো-তে শুধু মাত্র ডেরার যুগলরাই অংশগ্রহণ করতে পারতো। এই ‘বিগ বস’-এর মতো শো-টিতে সরাসরি ভাবে যুক্ত ছিল হনিপ্রীত সিংহও। শুক্রবার এমনই জানিয়েছেন হানিপ্রীত সিংহ-র প্রাক্তন স্বামী বিশ্বাস গুপ্ত। 


এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৬ দম্পতিকে এই এই খেলায় যুক্ত করেছিল রাম রহিম। তার মধ্যে হানিপ্রীত ও তার প্রাক্তন স্বামী বিশ্বাস গুপ্তও ছিল। একটি গুপ্ত গুহার মধ্যে এই দম্পতিদের টানা ২৮ দিন থাকতে হয়েছিল। বাইরের জগতের সঙ্গে তখন কোনও যোগাযোগ ছিল না এই দম্পতিদের। 


এমন অদ্ভুত কারবারের বিরুদ্ধে বহু বার মুখ খুলবেন বলে ভেবেছিলেন বিশ্বাস গুপ্ত। কিন্তু ভয় পেয়ে বার বার পিছিয়ে গিয়েছেন। সাংবাদিক বৈঠকের আয়জন করে এমনই জানান তিনি। তিনি বলেন, ‘আমি জানি না, এই সাংবাদিক বৈঠক আয়োজন করার পরে আমি বেঁচে থাকবো কি না।’ এই বলে তিনি কাঁদতে কাঁদতে বেরিয়ে যান। 


আরও তথ্য উঠে আসে বিশ্বাস গুপ্তের কথায়। তিনি জানান, হানিপ্রীতকে মোটেই আইনি পদ্ধতি মেনে দত্তক নেয়নি রাম রহিম। বাবা-মেয়ে সুলভ কোনও সম্পর্কই ছিল না তাদের মধ্যে। তাদের বিরুদ্ধে মুখ খুললে বিশ্বাসকে প্রাণে মারারও হুমকি দিয়েছিল ভণ্ড বাবা ও হানিপ্রীত। 


১৯৯৯ সালে হানিপ্রীত ও বিশ্বাসের বিয়ে হয়। ২০০৯ সালে ভণ্ডবাবা হানিপ্রীতকে দত্তক নেয়। ২০১১ সালে বিশ্বাস ও হনিপ্রীতের ডিভোর্স হয়ে যায়। তখন রাম রহিম বিশ্বাসক প্রাণে মেরে ফেলার ফন্দি এঁটেছিল। ডিভোর্সের পরে ডেরা ছেড়ে পাঁচকুলায় নিজের বাড়িতে চলা যান বিশ্বাস। সেখানেও রাম রহিমের লোক তাঁর উপরে নিয়মিত নজর রাখত।


-সূত্র: এবেলা


Top