রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে রোডম্যাপ দেবেন প্রধানমন্ত্রী | daily-sun.com

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে রোডম্যাপ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

ডেইলি সান অনলাইন     ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৮:৪৮ টাprinter

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে রোডম্যাপ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

 

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গাদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনীসহ বিভিন্ন বাহিনীর নির্মম হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সমস্যা সমাধানে রোডম্যাপ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশ্বের সব দেশকে সঙ্গে নিয়ে এই রোডম্যাপ তৈরি করেছেন তিনি। সোমবার (১১ সেপ্টেম্বর) কক্সবাজারের কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণকালে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের একথা জানান।


তিনি বলেন, মিয়ানামারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর বর্বর গণহত্যা চালানো হয়েছে। জীবন বাঁচাতে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে রোহিঙ্গাদের জন্য সীমান্ত উন্মুক্ত করে দেয়া হয়েছে, যাতে অসহায় রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে পারে।


ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের দেশ নানা সমস্যায় জর্জরিত। নিজেদের সমস্যা ও সংকট মোকাবেলায় সরকার প্রতিনিয়ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। রোহিঙ্গা সমস্যাটি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতায় দ্রুত সমাধান করে তাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হবে।


এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, ত্রাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দি, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উখিয়া-টেকনাফ আসনের সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহম্মেদ চৌধুরী, জেলা পরিষদের সদস্য আশরাফ জাহান কাজল, উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


প্রসঙ্গত, ২৪ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ৩০টি পুলিশ ফাঁড়ি ও একটি সেনা ছাউনিতে ‘রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের’ হামলার ঘটনায় নিরাপত্তা বাহিনীর ১২ সদস্যসহ অন্তত ৯৬ জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের ৮৪ জন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (২৫ আগস্ট) ‘আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (এআরএসএ)’ নামে একটি গ্রুপ হামলার দায় স্বীকার করেছে। রাখাইনে এ হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন রোহিঙ্গা ইস্যুতে গঠিত কমিশনের প্রধান ও জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান। 


এরপর রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে হেলিকপ্টার গানশিপের ব্যাপক ব্যবহার করেছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। অভিযানের নামে সাধারণ মানুষের ওপর হত্যা, ধর্ষণ, বাড়িঘরে আগুনসহ নানা নির্যাতন চালানো হচ্ছে। এতে মিয়ানমার সরকারের হিসাবে ৪ শতাধিক রোহিঙ্গা মুসলিম নিহত হয়েছেন। ২৭ হাজারেরও বেশি ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। মিয়ানমারে জাতিসংঘের বিশেষ র‌্যাপোটিয়ার ইয়াং লি শুক্রবার (৮ সেপ্টেম্বর) বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেছেন, রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অভিযানে কমপক্ষে ১ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন। এদের বেশিরভাগই রোহিঙ্গা মুসলিম।


এদিকে উদ্ভূত এ পরিস্থিতিতে প্রতিদিন পালিয়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিচ্ছেন হাজার হাজার রোহিঙ্গা। জাতিসংঘের তথ্যমতে, এ পর্যন্ত প্রায় তিন লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। তবে স্থানীয় লোকজনের দাবি, এই সংখ্যা আরও বেশি। এছাড়াও নাফ নদীর জলসীমানা থেকে শুরু করে স্থল সীমানা পার হয়ে নো-ম্যানস ল্যান্ডে অবস্থান নিয়েছে আরও হাজার হাজার রোহিঙ্গা।


এছাড়া পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম রবিবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নিজের ফেরিফাইড ফেসবুকে এক পোস্টে জানান রাখাইনে সাম্প্রতিক সংঘাতের পর বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া মুসলিম রোহিঙ্গাদের সংখ্যা ৭ লাখ ছাড়িয়ে। এর মধ্যে বিগত ১৫ দিনে বাংলাদেশে ৩ লাখ রোহিঙ্গা এসেছে।

 


Top