হারিকেন ইরমার আঘাতে বাহামার সমুদ্র উধাও! (ভিডিওসহ) | daily-sun.com

হারিকেন ইরমার আঘাতে বাহামার সমুদ্র উধাও! (ভিডিওসহ)

ডেইলি সান অনলাইন     ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৪:৩৪ টাprinter

হারিকেন ইরমার আঘাতে বাহামার সমুদ্র উধাও! (ভিডিওসহ)

 

প্রশান্ত মহাসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ইরমা কিউবাসহ বেশ কতগুলো ক্যারিবিয়ান দ্বীপে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে আঘাত হেনেছে। উপকূলের কাছে বেশ কয়েকটি ছোট দ্বীপের অবস্থা খুবই গুরুতর। উপকূলীয় শহরগুলো ইতিমধ্যে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। আবহাওয়াবিদরা সতর্ক করে দিয়েছিলেন, তীব্র বাতাসের ফলে উপকূলে বিধ্বংসী ‘স্টর্ম সার্জ’ আছড়ে পড়তে পারে। এই ‘স্টর্ম সার্জে’ ঝোড়ো বাতাস সমুদ্রের পানিকে ঠেলে প্রায় সাড়ে চার মিটার উঁচু ঢেউয়ের আকারে উপকূলে আছড়ে পড়ে। তবে বাহামা দ্বীপপুঞ্জের এক অদ্ভুত বিষয় নিয়ে আলোচনা এখন তুঙ্গে।


বাহামা দ্বীপপুঞ্জ থেকে বিভিন্ন মানুষের তোলা ছবিতে দেখা যাচ্ছে ঘূর্ণিঝড় ইরমার অভিঘাতে সেখানে কোনো কোনো জায়গায় সমুদ্র বহুদূর পর্যন্ত উধাও হয়ে গেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন লং আইল্যান্ড নামে একটি দ্বীপের চারপাশে সমুদ্রের পানি যেন হঠাৎই শূন্যে মিলিয়ে গেছে।


কিন্তু কী কারণে সমুদ্রের পানি চলে গেছে? এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদরা বলছেন, শনিবার লং আইল্যান্ডে ইরমা’র গতিপথ ছিল দক্ষিণ-পূর্ব থেকে উত্তর-পশ্চিমে। এর ফলে দ্বীপের উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে সমুদ্রসৈকতের সবটুকু পানি সে সরিয়ে দিয়েছে। যেন ব্লটিং পেপারের মতো কেউ শুষে নিয়েছে সেখানকার পানি! কারণ, ঘূর্ণিঝড়ের গর্ভে চাপ খুব কমে যায় বলে তা আশপাশের বাতাসকেও টেনে নিতে থাকে। ফলে বদলে যায় সমুদ্রপৃষ্ঠের চেহারা। তখন আশপাশের এলাকা থেকে পানিও টানতে শুরু করে ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্র বা গর্ভ।


ইরমা লং আইল্যান্ডের সৈকত থেকে পানি টেনে নিয়েছে। ফলে পানি উধাও হয়ে গেছে লং আইল্যান্ডের সৈকত থেকে। মনে হচ্ছে, যেন কোনো কালেই সেখানে ছিল না কোনো সমুদ্র! তবে প্রায় ২১০ কিলোমিটার গতির চার ক্যাটাগরির বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড় ইরমা’র জোর কমে গেলে ওই পানি আবার ফিরে আসে লং আইল্যান্ডের ওই সৈকতে।


বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, হারিকেনের ফলে যে প্রবল নিম্নচাপ সৃষ্টি হয় তা অনেক সময় এভাবে উপকূলীয় অঞ্চল থেকে সমুদ্রের পানিকে শুষে নেয় - তখন বাইরে বেরিয়ে পড়ে পানির নিচে থাকা কর্দমাক্ত সমুদ্রতল।


বাহামার ওই সমুদ্র ও সোনালি সৈকতের পানি হাওয়ায় মিলিয়ে যাওয়ার দৃশ্য অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়াতে তার ছবি ও ভিডিও পোস্ট করেছেন। তবে বিজ্ঞানীরা বলছেন, ঘূর্ণিঝড়ের এই প্রভাবটা সাময়িক। অনেকটা যেন বাতাসের তোড়ে পানি অন্যদিকে চলে যাওয়ার মতো। পরে আবার এখানে পানি চলে আসবে।


- সূত্র: বিবিসি ও ফক্স নিউজ

 

 

 


Top