দিল্লির সেই ছাত্রকে খুন করেছে স্কুল বাসের কনডাক্টর | daily-sun.com

দিল্লির সেই ছাত্রকে খুন করেছে স্কুল বাসের কনডাক্টর

ডেইলি সান অনলাইন     ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৫:১১ টাprinter

দিল্লির সেই ছাত্রকে খুন করেছে স্কুল বাসের কনডাক্টর

 ভারতের রাজধানী দিল্লির  গুড়গাঁওয়ের এক স্কুলের শৌচালয় থেকে উদ্ধার হয়েছিল ওই স্কুলেরই এক ছাত্রের দেহ। শুক্রবার সকালে স্কুলের অন্যান্য ছাত্ররা শৌচালয়ে গেলে ওই ৭ বছরের বালকের গলা কাটা দেহটি প্রথম দেখতে পায়। ছাত্রের দেহের পাশেই রাখা ছিল একটি ছুরি। 

 

শুক্রবার রাতেই এই ঘটনায় রায়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের বাস কনডাক্টর অশোক কুমারকে গ্রেফতার করেছে গুড়গাঁও পুলিশ। অভিযু্ক্ত বাস কনডাক্টর শিশুটিকে খুনের কথা স্বীকার করেছে পুলিশের কাছে। 

 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ক্লাস টু-এর বছরের ওই শিশুটিকে যৌন হেনস্থা করতে চেয়েছিল অশোক কুমার। পুলিশ আরও জানিয়েছে যে, নির্দিষ্ট ওই শিশুটিকেই নিশানা করেনি সে। শৌচালয়ে গিয়ে ওই ৭ বছরের ওই বাচ্চাটিকে দেখতে পেলে, তার উপরে চড়াও হয় অশোক কুমার। কিন্তু বাচ্চাটি বাধা দেওয়ায় পকেট থেকে ছুরি বের করে তাকে খুন করে ধৃত বাস কনডাক্টর। সে বিগত ৭-৮ মাস ধরে এই স্কুলের বাসে কনডাক্টর হিসেবে কাজ করছে। 

 

শুক্রবার সকাল ৭.৫৫ তে স্কুলে দিয়ে আসেন বাচ্চাটির বাবা। ৮.১০ নাগাদই তার কাছে স্কুল থেকে ফোন করে জানানো হয় যে, তার ছেলেকে রক্তাক্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। শুনেই  স্কুলে ছুটে যান তিনি। কিন্তু তাঁর পৌঁছনোর মধ্যেই শিশুটির মৃত্যু হয়।

 

ক্লাস টু-এর ওই ছাত্রটির বাবা জানিয়েছেন, ‘‘এটা সম্পূর্ণ ভাবে একটি খুনের ঘটনা। স্কুলের মধ্যে এই ঘটনা ঘটেছে। মা-বাবারা কী ভাবে জানবেন যে, তাঁদের বাচ্চার সঙ্গে স্কুলে কী হচ্ছে?’’

 

এই ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই স্কুলের অন্যান্য পড়ুয়াদের অভিভাবকরা স্কুলে ভাঙচুর চালিয়ে বিক্ষোভ দেখান। এর পরে থানায় গিয়েও স্কুলের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ দেখান কয়েকজন অভিভাবক।   

 

 

স্কুলের মধ্যেই খুন দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র


Top