সাইজ জিরো মডেল ব্যবহারে ফ্রান্সের না | daily-sun.com

সাইজ জিরো মডেল ব্যবহারে ফ্রান্সের না

ডেইলি সান অনলাইন     ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০১:১৭ টাprinter

সাইজ জিরো মডেল ব্যবহারে ফ্রান্সের না

সম্প্রতি ফ্রান্সের বেশ কয়েকটি শীর্ষ ফ্যাশন ব্র্যান্ড ঘোষণা দিয়েছে তারা আর শীর্ণকায় মডেল ব্যবহার করবে না। বেশ কিছুদিন ধরেই শীর্ণকায় মডেল ব্যবহারের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে উঠেছে।

 

অভিযোগ উঠেছে, বাস্তবতা বর্জিত অতিরিক্ত শীর্ণ মডেলদের দেখে অনেক তরুণীই তেমন হওয়ার চেষ্টা করে। এতে তাদের ইটিং ডিসঅর্ডারসহ নানা শারীরিক সমস্যা তৈরি হয়।

 

সম্প্রতি এসব সমালোচনার মুখে পড়ে শীর্ষ কয়েকটি ব্র্যান্ড ঘোষণা দিয়েছে তারা আর ৩৪ সাইজের নিচে মডেলদের নিয়োগ করবে না। এমনকি ফ্যাশন শোতে ক্যাটওয়াক ও অ্যাডভার্টাইজিং ক্যামপেইনেও তাদের ব্যবহার করা হবে না।

 

যেসব ব্র্যান্ড এ ঘোষণা দিয়েছে তাদের মধ্যে রয়েছে ডায়োর, লুইস ভিটন, গুচ্চি, অ্যালেক্সান্ডার ম্যাককুইন, গিভেনচি, ফেনডি ও মার্ক জ্যাকবস।

 

এছাড়া প্রতিষ্ঠানগুলো প্রাপ্তবয়স্কদের পণ্যের বিজ্ঞাপনের জন্য ১৬ বছরের নিচের মেয়েদের নিয়োগ করবে না বলেও ঘোষণা করেছে। সৌন্দর্যের মিথ্যা ধারণা এবং নারীদের খাওয়া-দাওয়ার অনিয়ম বন্ধ করতেই এই পদক্ষেপ।

 

কিছুদিন আগে ফ্রান্সে নতুন একটি আইন করা হয়েছে। সে আইনে মডেল নিয়োগ করতে হলে শারীরিক উচ্চতা ও বয়সের সঙ্গে মিল রয়েছে এমন সনদ নেওয়ার বাধ্যবাধকতা রাখা হয়েছে।

 

তাতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মানুষের শারীরিক উচ্চতা ও বয়স অনুযায়ী ওজনের যে সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে, তা মেনে মডেল নিয়োগ করতে হবে।

 

সেই আইন অনুসারে, কোনো বিজ্ঞাপনী সংস্থা এই নিয়ম না মানলে ৭৫ হাজার ডলারেরও বেশি জরিমানা হবে। এমনকি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ছয় মাসের জেলও হতে পারে।

 

সমালোচকরা বলছেন বিজ্ঞাপনে শীর্ণকায় মডেল ব্যবহার করে সৌন্দর্যের এমন একটি কৃত্রিম ধারণা তৈরি করা হয়েছে, যা বাস্তবে হওয়া সম্ভব নয়।

 

কিছুদিন আগে ফ্রান্সের স্বাস্থ্য ও সমাজবিষয়ক মন্ত্রী বলেছেন, ‘অল্প বয়সী মেয়েরা যখন এ ধরনের অবাস্তব শারীরিক সৌন্দর্য দেখতে পায়, তখন তা তাদের আত্মবিশ্বাসে আঘাত হানে। সেই সঙ্গে তাদের জীবনযাপনেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। ’

 

সূত্র: মেইল অনলাইন


Top