যে মেয়েটি কাঁদছে সে আমার ৩ বছরের ভাগ্নি : গায়ক তোশি | daily-sun.com

যে মেয়েটি কাঁদছে সে আমার ৩ বছরের ভাগ্নি : গায়ক তোশি

ডেইলি সান অনলাইন     ২৪ আগস্ট, ২০১৭ ১৭:২৮ টাprinter

যে মেয়েটি কাঁদছে সে আমার ৩ বছরের ভাগ্নি : গায়ক তোশি

কয়েকদিন আগে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে  ছড়িয়ে পড়েছিল। ভিডিওতে পড়ার সময় একটি বাচ্চা মেয়েকে কাঁদতে দেখা গিয়েছিল। মেয়েটি হাত জোড় করে মাকে বলছে, ভালোবেসে পড়াও। মেরো না।

ভিডিওটি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করে পড়ানোর সময় এভাবে মেয়েটিকে শাসন করায় তীব্র ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন ভারতের ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তিনি বলেছেন, বাবা-মায়ের এই আচরণ সহ্য করা যায় না। সন্তানকে ভালোবাসা প্রয়োজন।

 

Untitled-8

 

এরপর ভিডিওটি শেয়ার করেন যুবরাজ সিংহ ও শিখর ধবনের মতো তারকাও। এরফলে লক্ষ লক্ষ দর্শকের কাছে পৌঁছে যায় ভিডিওটি। শিশুটির প্রতি নির্দয় আচরণের নিন্দায় ঝড় ওঠে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

পরে জানা যায় ওই মেয়েটি আসলে বলিউডের গায়ক তোশি সাব্রির ভাগ্নী। মেয়েটির নাম হায়া খান। এবার ওই ভাইরাল ভিডিও শেয়ার করার জন্য কোহলি ও অন্যান্যদের সমালোচনায় মুখর হলেন তোশি। তিনি বলেছেন, ওটা পারিবারিক ভিডিও। পরিবারের হোয়াটস্যাপ গ্রুপের জন্যই ভিডিওটি তোলা হয়েছিল।

 

সঙ্গীত পরিচালক শারিব সাব্রির ভাই তোষি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে বলেছেন, কোহলি ও ধবন আমাদের সম্পর্কে কিছুই জানেন না। আমরা ভালো করে জানি, আমাদের বাচ্চা কেমন!

তোষি বলেছেন, ওর স্বভাব ওই রকমই..ধমক খাওয়ার পরেই ও খেলতে চলে যায়। ওকে ছেড়ে দিলে ও বলবে, আমি মজা করছিলাম। ওর স্বভাবের জন্য যদি ছেড়ে দেওয়া দেওয়া হয় তাহলে পড়াশোনা করতে পারবে না।

 

তোশি আরও বলেছেন, ওই ভিডিও একজন মায়ের। মেয়েটি কতটা জেদি হয়েছে তা নিজের ভাই ও স্বামীকে দেখানোর জন্য তা তোলা হয়েছিল। ভিডিওতে দেখা গিয়েছে যে, হায়াকে তার মা মারছেন। এ ব্যাপারে তোশি বলেছেন, মা যাতে না পড়ায় সেজন্যই ও কাঁদছিল। এটা বড় কিছু ব্যাপার নয়। প্রত্যেক পরিবারেরই বাচ্চাদের বিভিন্ন ধরেন আড়িবায়না রয়েছে। আমাদের ওই বাচ্চাও খুব জেদি। তবে ও আমাদের খুবই আদরের।

 

তোষি আরও বলেছেন, একজন মায়ের মমতাকে এভাবে বিচার করা যায় না। বাচ্চা জেদ করলে তার পড়াশোনা কেউ কি বন্ধ করে দেয়?বাচ্চাদের বড় করার কাজটা সহজ নয়।


Top