আত্মস্বীকৃত খুনি নূর চৌধুরীকে ফেরত চাইলেন প্রধানমন্ত্রী | daily-sun.com

আত্মস্বীকৃত খুনি নূর চৌধুরীকে ফেরত চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

ডেইলি সান অনলাইন     ১৩ আগস্ট, ২০১৭ ১৭:৩৭ টাprinter

আত্মস্বীকৃত খুনি নূর চৌধুরীকে ফেরত চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

 

বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত নূর চৌধুরীকে ফেরত দিতে কানাডা সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রবিবার (১৩ আগস্ট) বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনার বেনোয়া পিয়েরে লাঘামে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাত করতে গেছে এ আহ্বান জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম পরে সাংবাদিকদের এ বিষয়ে ব্রিফ করেন।


ইহসানুল করিম বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের দেশে ফেরত প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কানাডার হাইকমিশনারকে বলেন, নূর চৌধুরী নামে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এক খুনি কানাডায় অবস্থান করছে। তাকে আপনারা ফেরত দিন।


জবাবে বেনোয়া পিয়েরে লাঘামে প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, ‘সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আপনার অনুরোধ আমি পৌঁছে দেব।’


সাক্ষাৎকালে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রসঙ্গও আসে। হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, আমরা সবার অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেখতে চাই। জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যার পর ২১ বছর এ দেশে কোনো গণতন্ত্র ছিল না। আমরাই মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠিত করেছি।


প্রধানমন্ত্রী স্বচ্ছ ব্যালটবাক্স চালুসহ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করতে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন উদ্যোগ ও অবদানের কথা এ সময় তুলে ধরেন।


গত সংসদ নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ না করা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা একটি কোয়ালিশন সরকার গঠনের কথা বলেছিলাম। বিএনপিকে বলেছিলাম, যে মন্ত্রণালয় তোমরা চাও দেব, নির্বাচনে তোমরা অংশ নাও।


বেনোয়া পিয়েরে লাঘামে বাংলাদেশে দায়িত্ব পালনকালে প্রধানমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি নিজ আগ্রহে বাংলা ভাষা শেখার বিষয়টি উল্লেখ করে বলেন, মায়ের ভাষা সংরক্ষণ ও রক্ষা করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।


এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি রক্তের বিনিময়ে ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং ২১ ফেব্রুয়ারিকে কেন্দ্র করে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের বিষয়টি উল্লেখ করেন।


আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে প্রশংসা করেন বিদায়ী এ রাষ্ট্রদূত। প্রথমদিকে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি প্রদানকারী দেশগুলোর মধ্যে কানাডা অন্যতম। বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক ক্রমাগত আরও জোরদার হচ্ছে। বিশেষ করে অর্থনৈতিক সহযোগিতা। স্বাস্থ্য ও শিক্ষা সেক্টরে বাংলাদেশের অগ্রগতিরও প্রশংসা করেন তিনি। হাইকমিশনার বলেন, উন্নয়নের কাজে বাংলাদেশ সফল।


কানাডা উন্নয়ন সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে এবং আরও জোরদার করবে বলেও জানান বেনোয়া পিয়েরে লাঘামে।

 


Top