মুস্তাফিজ-সৌম্য নৈপুণ্যে বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী | daily-sun.com

মুস্তাফিজ-সৌম্য নৈপুণ্যে বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী

ডেইলি সান ডেস্ক     ১৯ মে, ২০১৭ ১১:০২ টাprinter

মুস্তাফিজ-সৌম্য নৈপুণ্যে বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী

বল হাতে মুস্তাফিজুর রহমান ও ব্যাট হাতে সৌম্য সরকারের দুর্দান্ত পারফরমেন্সে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে সহজ জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।

 

মুস্তাফিজুরের ৪ উইকেট ও সৌম্যর অপরাজিত ৮৭ রানে ত্রিদেশীয় সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে বাংলাদেশ ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডকে।

 

ডাবলিনের মালাহিডে টস জিতে আয়ারল্যান্ডকে প্রথমে ব্যাটিং-এ পাঠায় বাংলাদেশ। শুরুটা ভালো করতে পারেনি আইরিশরা। ইনিংসের নবম বলেই উইকেট হারায় তারা। পল স্ট্রার্লিংকে শূন্য রানে ফেরান কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ।

 

এরপর শুরুর ধাক্কা সামলে ওঠার চেষ্টা করছিলেন আরেক ওপেনার এড জয়সে ও অধিনায়ক উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড। কিন্তু এই জুটিকে ৩৭ রানের বেশি করতে দেননি মোসাদ্দেক হোসেন। আগের ওভারে ক্যাচ মিস করলেও আক্রমণে এসেই ২২ রানে পোর্টারফিল্ডকে আউট করেন তিনি।

 

আয়ারল্যান্ডের তৃতীয় উইকেট তুলে নিতেও বেশি দেরি করেনি বাংলাদেশের বোলাররা। এন্ডি ব্যালব্রিনকে ১২ রানে থামিয়ে দেন সাকিব আল হাসান। ফলে ৬১ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে বসে আয়ারল্যান্ড।

 

এরপর বড় জুটির আভাস দেন উইকেটরক্ষক নিয়াল ও’ব্রায়ান ও জয়সে। অন্যপ্রান্ত দিয়ে সতীর্থদের যাওয়া আসা দেখা জয়সে রানের চাকা সচল রেখেছিলেন। ব্রায়ানও নিজ দক্ষতা দেখাতে থাকেন। ফলে এই জুটি অর্ধশতকের গণ্ডি পেরোয়।

 

কিন্তু মুস্তাফিজুর রহমান এই জুটি ভেঙে দিয়ে আয়ারল্যান্ডের ব্যাটিং শক্তি গুড়িয়ে দেন।

 

ব্রায়ানকে ৩০ রানে আউট করেন মুস্তাফিজুর। বাংলাদেশের ওপেনার তামিম ইকবাল থার্ড ম্যানে দুর্দান্ত এক ক্যাচ নেন ব্রায়নকে।

 

নিয়াল ও’ব্রায়ানের বিদায়ের কিছুক্ষণ পর বিদায় নেন জয়সেও। অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা বাঁ-হাতি স্পিনার সানজামুল ইসলাম আক্রমণে এসেই নিজের প্রথম ওভারের শেষ বলে জয়সেকে তুলে নেন। ফলে ৩টি চারে গড়ে উঠা ৭৪ বলে ৪৬ রানের ইনিংসটিও থেমে যায় জয়সের।

 

জয়সের বিদায়ের পর দ্রুত ২ উইকেট হারিয়ে অল্প রানেই গুটিয়ে যাবার শংকায় পড়ে আয়ারল্যান্ড। কিন্তু সেটি হতে দেননি লোয়ার-অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যান জর্জ ডকরেল ও ব্যারি ম্যাককার্থি।

 

অষ্টম উইকেটে ৬১ বল মোকাবেলা করে ৩৫ রান যোগ করেন তারা। এতে ১৮১ রান পর্যন্ত যেতে সার্মথ্য হয় আয়ারল্যান্ড। বাংলাদেশের মুস্তাফিজুর ২৩ রানে ৪ উইকেট নেন। এছাড়া মাশরাফি ও সানজামুল ২টি করে উইকেট নেন।

 

জয়ের জন্য ১৮২ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে চমৎকার শুরু করে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে উদ্বোধনী জুটিতে ৭২ রান করা তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার এবার করেন ৯৫ রান। এজন্য তারা বল খেলেন ৮৩টি। এসময় তামিম ৬টি চার ও সৌম্য ৪টি চার ও ২টি ছক্কা মারেন।

 

৫৪ বলে ৪৭ রানে তামিম থেমে গেলেও, টি-২০ মেজাজে রান তুলেছেন সৌম্য। তার সাথে পাল্লা দিয়ে রান তোলেন সাব্বির রহমান। তাই বাংলাদেশের জয়ের পথটা সহজ হয়ে যায়। তবে জয় থেকে ১১ রান দূরে থাকতে সাব্বির ফিরে গেলেও জয় পেতে কষ্ট করতে হয়নি বাংলাদেশকে।

 

কারণ ১১টি চারে ও ২টি ছক্কায় ৬৮ বলে ৮৭ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেন সৌম্য। তার সাথে ৩ রানে অপরাজিত ছিলেন মুশফিকুর রহিম। ম্যাচের সেরা হয়েছেন বাংলাদেশের মুস্তাফিজুর রহমান। আগামী ২৪ মে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

 

স্কোর কার্ড :

আয়ারল্যান্ড ইনিংস :

জয়সে ক তামিম ব সানজামুল        ৪৬

স্ট্রার্লিং ক সাব্বির ব মুস্তাফিজুর     ০

পোর্টারফিল্ড ক এন্ড ব মোসাদ্দেক   ২২

ব্যালবিরনি বোল্ড ব সাকিব          ১২

নিয়াল ও’ব্রায়ান ক তামিম ব মুস্তাফিজুর  ৩০

কেভিন ও’ব্রায়ান ক মোসাদ্দেক ব মুস্তাফিজুর        ১০

উইলসন ক মুশফিকুর ব মুস্তাফিজুর            ৬

ডকরেল ক মুশফিকুর ব মাশরাফি  ২৫

ম্যাককার্থি এলবিডব্লু ব সানজামুল  ১২

মুরতাগ অপরাজিত          ৫

চেজ ক মুশফিকুর ব মাশরাফি       ০

অতিরিক্ত (বা-১, লে বা-৪, ও-৮)   ১৩

মোট (অলআউট, ৪৬.৩ ওভার)    ১৮১

উইকেট পতন : ১/০ (স্ট্রার্লিং), ২/৩৭ (পোর্টারফিল্ড), ৩/৬১ (ব্যালবিরনি), ৪/১১৬ (নিয়াল ও’ব্রায়ান), ৫/১২৬ (জয়সে), ৬/১৩৪ (কেভিন ও’ব্রায়ান), ৭/১৩৬ (উলসন), ৮/১৭১ (ম্যাককার্থি), ৯/১৮০ (ডকরেল), ১০/ ১৮১ (চেজ)।

 

বাংলাদেশ বোলিং :

রুবেল : ৮-১-৪১-০ (ও-২),

মুস্তাফিজুর : ৯-২-২৩-৪ (ও-২),

মাশরাফি : ৬.৩-১-১৮-১ (ও-৩),

মোসাদ্দেক : ৬-০-২১-১,

সাকিব : ৯-০-৩৮-১,

মাহমুদুল্লাহ : ৩-০-১৩-০,

সানজামুল : ৫-০-২২-২ (ও-১)।

 

বাংলাদেশ ইনিংস :

তামিম ইকবাল ক নিয়াল ও’ব্রায়ান ব কেভিন ও’ব্রায়ান   ৪৭

সৌম্য সরকার অপরাজিত ৮৭

সাব্বির রহমান ক ডকরেল ব ম্যাককার্থি ৩৫

মুশফিকুর রহিম অপরাজিত          ৩

অতিরিক্ত (লে বা-৩, ও-৭)            ১০

মোট (২ উইকেট, ২৭.১ ওভার)      ১৮২

উইকেট পতন : ১/৯৫ (তামিম), ২/১৭১ (সাব্বির)

 

আয়ারল্যান্ড বোলিং:

চেজ : ৭-০-৫৫-০ (ও-৩),

মুরটাগ : ৫-০-২৬-০ (ও-১),

ম্যাককার্থি : ৪-০-৪২-১ (ও-২),

স্ট্রার্লিং : ২-০-১৪-০,

কেভিন ও’ব্রায়ান : ৫.১-০-২২-১ (ও-১),

ডকরেল : ৪-০-২০-০।

ফল : বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচ সেরা : মুস্তাফিজুর রহমান (বাংলাদেশ)।


Top