সাংবাদিকদের ওপর নজরদারি ‘বাকশালী আচরণের’ বর্হিপ্রকাশ: রিজভী | daily-sun.com

সাংবাদিকদের ওপর নজরদারি ‘বাকশালী আচরণের’ বর্হিপ্রকাশ: রিজভী

ডেইলি সান অনলাইন     ১৯ মে, ২০১৭ ১৬:৩৭ টাprinter

সাংবাদিকদের ওপর নজরদারি ‘বাকশালী আচরণের’ বর্হিপ্রকাশ: রিজভী

 

সাংবাদিকদের ওপর নজরদারি ‘বাকশালী আচরণের’ বর্হিপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। একই সঙ্গে তিনি বলেন, নেতাদের অবৈধ সম্পদ রক্ষায় শেখ হাসিনা আজকে ক্ষমতা ছাড়তে চান না।  


আজ শুক্রবার (১৯ মে) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে স্বাধীনতা ফোরামের মানববন্ধনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এসব কথা বলেন। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু ও যুগ্ম মহাসচিব খাইরুল কবির খোকনসহ সকল রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধন করা হয়।


রিজভী বলেন, আজকে খবরের কাগজ খুললেই আওয়ামী লীগের মন্ত্রী এমপিদের প্রাসাদ আর হোটেলের ছবি আমরা দেখতে পাই। কী পরিমাণ দুর্নীতি করলে মাত্র ৫ থেকে ৬ বছরের মধ্যে এ রকম কোটি কোটি টাকার মালিক হতে পারে। নেতাদের এই অবৈধ সম্পত্তি রক্ষার জন্যেই প্রধানমন্ত্রী আজ ক্ষমতা ছাড়তে চান না।


এদিকে বিদেশে গিয়ে বাংলাদেশের সাংবাদিকরা ‘দেশের স্বার্থবিরোধী কোনো তৎপরতায় লিপ্ত আছে কি না’ সে বিষয়ে নজরদারির নির্দেশ দিয়ে বুধবার (১৭ মে) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বাংলাদেশের মিশনগুলোতে একটি সার্কুলার পাঠানোর খবর বৃহস্পতিবার (১৮ মে) সংবাদ মাধ্যমে আসে। ওই সার্কুলারের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘নিষ্ঠুর, ঘাতক, বাকশাল, একদলীয় সরকারের এ ধরনের কর্মকাণ্ডের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি আমরা।’


তিনি বলেন, সাংবাদিক ও গণমাধ্যম গণতন্ত্রের একটি মূল ভিত্তি। তাদের স্বাধীনতাকে আজকে বাংলাদেশে সঙ্কুচিত করা হয়েছে। আজকে সত্য উচ্চারণ বন্ধ করেছে, মিডিয়ার ওপর স্বঘোষিত নিয়ন্ত্রণ জারি করেছে। এখন তাদের চলাচলের ওপরে নজদারি করছে। এটা কোনো গণতান্ত্রিক সরকার করে না।


রিজভী বলেন, সরকারের টার্গেট হচ্ছে বিএনপিকে ধ্বংস করা। বিএনপিকে আতংক মনে করে বলেই সরকার আজ বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের দিয়ে দেশের সমস্ত কারাগার ভরেছে। বিএনপির নেতাদের গুম, খুন, হত্যার পরেও এই সরকারের আতংক যেন কাটছেই না। সমাজের শীর্ষ সন্ত্রাসীরা যেমন ভয়ে থাকে এই সরকারও তেমনি ভয়ে থাকে।


এসময় তিনি দাবি করেন, বিএনপি সরকারে ভয় পায় না। আন্দোলন সংগ্রামের দল বিএনপি।


রিজভী অভিযোগ করে বলেন, শাসন বিভাগ বিচার বিভাগের ওপর হস্তক্ষেপ করছে। এজন্য প্রধান বিচারপতির সত্য কথায় আওয়ামী লীগ নেতাদের গায়ের জ্বালা বেড়ে যাচ্ছে।


আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমতউল্লাহর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ।

 


-->
Top