'আমি কেন বুবলীকে হুমকি দিবো? আমি কি সন্ত্রাসী?' | daily-sun.com

'আমি কেন বুবলীকে হুমকি দিবো? আমি কি সন্ত্রাসী?'

ডেইলি সান অনলাইন     ২০ মার্চ, ২০১৭ ১৭:২১ টাprinter

'আমি কেন বুবলীকে হুমকি দিবো? আমি কি সন্ত্রাসী?'

 

 

আমি বুবলীকে কেন হুমকি দিতে যাবো আমি কি সন্ত্রাসী? আমি তো সন্ত্রাসী নই, তাহলে বুবলী কেন বারবার গণমাধ্যমের কাছে বিষয়টিকে ইস্যু করে তুলছে? বুবলী গতকাল থেকে দুইটি বিষয়কে ইস্যু করার চেষ্টা করে যাচ্ছে।   এক- হুমকি, দুই- নিরাপত্তা।   কেন?  এরপর যদি সে বিষয়গুলোকে ইস্যু করার চেষ্টা করে তাহলে আমিও আমার জায়গা থেকে পদক্ষেপ নেবো।   

 

গত দুইদিন ধরে বুবলীর গণমাধ্যমে দেওয়া বক্তব্যের বিপরীতে এসব কথাই জানালেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপু বিশ্বাস। তবে বুবলীকে 'অকথ্য ভাষা'য় গালিগালাজের বিষয়টি স্বীকার করে নিয়ে অপু বলেছেন, হ্যাঁ আমি তাকে ফোন দিয়েছি গালি দেওয়ার জন্য।   অবশ্যই আমি তাকে গালি দিয়েছি। কেন গালি দিয়েছি সেটা বুবলী ভালো করেই জানে।হুমকি আমি দেইনি। আমি সিনিয়রর আর্টিস্ট আমি সন্ত্রাসী নই।

 

অপু বলেন, আমি তাকে ফোন দিয়েছি সে স্বাভাবিকভাবেই আমার ফোন রিসিভ করে আমাকে সালাম দিয়েছে। সে তো জানে না অপু তাকে ফোন দিয়েছে। আমি আমার পরিচয় দিতেই সে রেকর্ড করতে শুরু করে। আমিও তাকে বলে দেই রেকর্ড করে নে।এসময় আমি তাকে 'তুই' করে বলি, অনেক উত্তেজিত ছিলাম। তাকে গালি দিয়েছি। সে রেকর্ড করে রেখেছে। সবাইকে বলছে সে রেকর্ড শোনাবে। কিন্তু রেকর্ড তো আমিও করে রেখেছি।রেকর্ড আমিও শোনাবো।  

 

কেন গালি দিয়েছেন এমন প্রশ্নের জবাবে অপু বলেন, আসলে সমস্যাটা তেমন কিছুই না। শাকিব খানকে নিয়ে একটি ছবি পোস্ট করেছে সে, সেই ছবির ক্যাপশনে 'হার্ট ইমো' ব্যবহার করে  'ফ্যামেলি টাইম' লিখেছে। সে কেন ফ্যামেলি টাইম লিখেছে, সে কেন এটা লিখবে? শাকিব কি তাদের ফ্যামেলি মেম্বার? সে কি ইঙ্গিত করতে চায়?  আমি শাকিবকে বিষয়টা বলার পর শাকিব আমাকে জানিয়েছে বুবলীর সাথে শুটিং-এর বাইরে কথা হয় না। এরপরে আমি নিজেই তাকে ফোন দিয়েছি।   

 

আচ্ছা বুবলীর ফ্যামেলি মেম্বার না শাকিব এটা আমরা সবাই বুঝলাম, ধরেই নিলাম। কিন্তু আপনি কেন উত্তেজিত হচ্ছেন, আপনি বলুন শাকিব কি আপনার ফ্যামেলি মেম্বার?  এটা একটা বড় প্রশ্ন হয়ে গেছে। এই প্রশ্নের উত্তরে কী বলবেন?  অপু বিশ্বাস একটু থেমে বললেন এই প্রশ্নের উত্তরটা শাকিব দিতে পারবে। আপনারা শাকিব খানকে জিজ্ঞেস করুন।

 

সুত্রঃ কালের কণ্ঠ 


-->
Top