অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে কান ধরে সিজদা করানো সেই এসআই প্রত্যাহার | daily-sun.com

অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে কান ধরে সিজদা করানো সেই এসআই প্রত্যাহার

ডেইলি সান অনলাইন     ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ০১:৪৬ টাprinter

অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে কান ধরে সিজদা করানো সেই এসআই প্রত্যাহার

 

কক্সবাজারের পেকুয়ায় ট্রাক চালককে মাঝরাস্তায় কান ধরে সিজদা করানো পুলিশ কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। নেয়া হচ্ছে বিভাগীয় ব্যবস্থা। গতকাল বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) তাকে পেকুয়া থানা থেকে কক্সবাজার পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে বলে পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে।


পেকুয়া থানার ওসি (তদন্ত) মনজুর কাদের মজুমদার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘তৌহিদুল ইসলামকে পেকুয়া থানা থেকে কক্সবাজার পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় এ আদেশ পেয়েছি।’


কক্সবাজারের পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন বলেন, তৌহিদুল ইসলামকে প্রত্যাহারের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।


জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে চৌমুহনী চৌরাস্তায় এসআই তৌহিদুল ইসলাম মীর কাশেম (৫৫) নামের এক চালককে রাস্তায় কান ধরে সিজদা করতে বাধ্য করেন। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর পুরো জেলায় সমালোচনার ঝড় শুরু হয়। পরে সন্ধ্যায় ওই এসআইকে প্রত্যাহার করা হয়।


ট্রাকচালক মীর কাশেম কক্সবাজার সদরের নাজিরারটেকের বাসিন্দা। তিনি জানান, কক্সবাজার থেকে মালবোঝাই ট্রাক নিয়ে চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে পেকুয়া চৌমুহনী এলাকায় তাকে থামার নির্দেশ দেন ওই এসআই। গাড়ি থেকে নামতেই তার গায়ে গাড়ি লাগল কেন জানতে চেয়ে কান ধরে রাস্তায় সিজদার নির্দেশ দেন। পরে আপত্তি জানালেও অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে অসংখ্য মানুষের সামনে কান ধরে সিজদা করাতে বাধ্য করেন। 


তিনি বলেন, ‘আমার ছেলের বয়সী এক পুলিশ অফিসারের কাছে এমন লাঞ্ছনায় আমার আত্মহত্যা করতে ইচ্ছে করছে। আমি এর বিচার চাই।’


বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন কক্সবাজার জেলা সভাপতি আবু মোরশেদ চৌধুরী খোকা বলেন, এটি মানবাধিকার লংঘন। চালক হিসেবে তিনি কোনো অপরাধ করে থাকলে তাকে আইনে সোপর্দ করতেন। তিনি কোনোমতেই জনসম্মুখে এভাবে লাঞ্ছিত করতে পারেন না।

 


Top