গাঁজা সেবনে রহস্যময় রোগের বিস্তার | daily-sun.com

গাঁজা সেবনে রহস্যময় রোগের বিস্তার

ডেইলি সান অনলাইন     ৪ জানুয়ারী, ২০১৭ ১৬:১৯ টাprinter

গাঁজা সেবনে রহস্যময় রোগের বিস্তার

আমেরিকার হাসপাতালগুলোর ইমার্জেন্সি রুমে ক্রমেই ভিড় বাড়ছে। একটি বিশেষ রোগের লক্ষণ নিয়ে ছুটে যাচ্ছেন তারা।

আর এরা সবাই গাঁজা সেবন করেন। বিশেষ করে আমেরিকার যেসব স্থানে গাঁজাকে বৈধ করা হয়েছে, সেখানে এমন ঘটনা বেশি চোখে পড়ছে।

লক্ষণের মধ্যে পেটে প্রচণ্ড ব্যথা এবং মারাত্মক বমি সবচেয়ে বেশি চোখে পড়ছে। এদের চিকিৎসাব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষেত্রে চিকিৎসকরা বেশ ধাঁধায় পড়ে গেছেন। এ অবস্থাকে বলা হচ্ছে ক্যানাবিনয়েড হাইপারএমেসিস সিনড্রোম (সিএইচএস)। অতিরিক্ত ও দীর্ঘমেয়াদে গাঁজা খাওয়ার কারণে এমনটা হয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। অনেকের ক্ষেত্রে গরম পানিতে গোসলের পর ব্যথা ও বমি কমে আসছে।

২০০৯ সাল থেকে আমেরিকার ফেডারেল গর্ভমেন্ট গাঁজাকে বৈধ করেছে চিকিৎসার প্রয়োজনে। কিন্তু কলোরাডোর কয়েকটি হাসপাতালে গাঁজা খাওয়ার ফলে এই বিশেষ সমস্যা নিয়ে অনেক মানুষ ছুটে আসছেন।

ইউনিভার্সিটি অব কলোরাডো হসপিটালের ফিজিশিয়ান ড. কেনোন হার্ড এসব তথ্য দেন।    

সিএইচএস সমস্যা চিহ্নিত করা হয় এক যুগ আগে। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এই রোগটি পরিচিতি পায়নি। এ সমস্যার পেছনে বৈজ্ঞানিক কারণও বের করা হয়নি বলে জানানো হয় ডেনভার চ্যানেলে। সেখানে আরো বলা হয়, যারা বেশি পরিমাণ ও অনেক দিন ধরে গাঁজা সেবন করে আসছেন, তাদেরই এই সমস্যা দেখা যাচ্ছে। গাঁজার অতিরিক্ত ডোজ দেহের অনুভূতি গ্রহণকারী অংশগুলোতে পরিবর্তন ঘটায়। এগুলো পানিশূন্যতায় ভুগতে থাকে। এতে ব্যথার সৃষ্টি হয়।

কলোরাডো স্প্রিং মেমোরিয়াল হসপিটালের ফিজিশিয়ান ড. ডেভিড স্টেইনবার্নার জানান, সিএইচএস হয় মাত্রাতিরিক্ত গাঁজা সেবনের কারণে। এ রোগের সর্বোচ্চ পর্যায়ে কিডনি ফেইলিওরের মতো সমস্যা হতে পারে।

যে রোগীরা আসছেন তাদের আইভি স্যালাইন এবং অন্যান্য ওষুধপত্র দেওয়া হচ্ছে। এতে বমি এবং ব্যথা কমে আসছে। এভাবে গাঁজা সেবনের কারণে যেকোনো মানুষে এ রোগ গতে পারে। এ রোগ থেকে পরিত্রাণের একমাত্র উপায় গাঁজা সেবন বন্ধ করে দেওয়া।

সূত্র : হাফিংটন পোস্ট


Top