স্যুটে স্মার্ট হতে ডিজাইনারের টিপস | daily-sun.com

স্যুটে স্মার্ট হতে ডিজাইনারের টিপস

ডেইলি সান অনলাইন     ২৫ ডিসেম্বর, ২০১৬ ১৭:০৮ টাprinter

স্যুটে স্মার্ট হতে ডিজাইনারের টিপস

 

 

ডিজাইনার ট্রয় কস্তার মতে, একজন পুরুষের পোশাকের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণটি হলো স্যুট। যেকোনো কাজ বা অনুষ্ঠান বা স্থানে এর চেয়ে গ্রহণযোগ্য পোশাক আর হয় না।

 

তবে সময়ের সঙ্গে পশ্চিমা পোশাকটি আরো বেশি স্টাইলিশ হয়ে উঠছে। এখন অনেক ক্ষেত্রেই স্যুট পুরনো ব্যাকরণ মেনে বানানো হয় না। শীতের পোশাক বলে বিবেচিত হয়। কিন্তু গরমেও ড্রেসকোড মানতে এর ব্যবহার চলে। বহু অফিস-আদালতে সারা বছরই স্যুট পরতে হয়। এর কোনো বিকল্প নেই।  

 

এখনকার স্যুট কোনটা লম্বায় স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি, কোনটার আবার প্যান্ট দৈর্ঘ্যে বেশ কম। এভাবে স্যুটকে নানাভাবে স্টাইলিশ করে তোলা হয়েছে। মোটকথা স্যুট আর নির্দিষ্ট কোনো নিয়মে বাঁধা নেই।

তারপরও প্রশ্ন থাকে, নিখুঁত একটা স্যুটের বৈশিষ্ট্য কি? বিশেষজ্ঞরা জানান, শার্ট বা প্যান্টের চেয়ে স্যুট বানানো অনেক কঠিন। পটু শিল্পীর হাতে তৈরি হতে পারে একটা নিখুঁত স্যুট। সমাজে গুরুত্ব, স্টাইল ও অভিজাত বোঝাতেই এটি তৈরি করা হয়েছে।

 

তাই স্যুট বানানো বা বেনার সময় মনে রাখতে হবে যে,
১. যখন ফিটিংয়ের বিষয় আসে, তখন দক্ষ দর্জির প্রয়োজন।

২. যখন রেডিমেড স্যুট কিনবেন তখন কাঁধের ফিটিংস গুরুত্বপূর্ণ। এটি ফিটিং হতেই হবে। কাঁধের মাপ কম-বেশি হলে আপনার আকার বদলে যাবে। অদ্ভুত দেখাবে আপনাকে।

৩. এখন অনেকেই হাতার দৈর্ঘ্য নিয়ে চিন্তিত নন। রেডিমেড স্যুটের হাতা একটু লম্বাই থাকে। তবে দর্জি দিয়ে বানালে মনের মতো হাতার মাপ মিলবে।

৪. যদি কোটের নিচে ফুল-হাতা শার্ট পরেন, তবে তার হাতার দৈর্ঘ্য কোটের হাতার চেয়ে আধা ইঞ্চি বেশি হবে।

৫. শার্টের হাতায় কাফলিং বা বোতাম থাকতে হবে।

৬. কোটের পেছনটি যেন পরিপাটি হয়ে থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। রেডিমেড স্যুটের পেছনটা সাধারণত খাড়া হয়ে পড়ে থাকে। তবে কিছুটা কার্ভড করতে গেলে নিখুঁত কারিগর দরকার।

৭. ভালোমানের স্যুট হাতে কাটা, হাতে বানানো ও হাতে ফিনিশ করা হয়। এটাই সর্বোত্তম উপায়।

৮. ভালো দাম দিয়েই কাপড় কেনা ভালো। এগুলো সহজে নষ্ট হয় না। আবার কুঁচকেও থাকে না।

৯. একবার স্যুট বানানো হয়ে গেলে এর আকৃতি নিয়ে নানা পরীক্ষা চালাতে পারেন।

যেসব বিষয় করবেন এবং করবেন না-
১. খুব সাধারণ ডিজাইনের স্যুটই ভালো দেখায়।

২. রুচিশীল রং ও শেডের মাধ্যমে সমন্বয় করা যায়।

৩. ভালো মানের স্যুটের সঙ্গে জুতা, ব্রোচেস বা পকেট স্কয়ারের দিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

৪. কোনো ফরমাল অনুষ্ঠানে ব্লেজার ভিন্ন রংয়ের প্যান্টের সঙ্গে পরতে পারেন।

৫. আর যারা রং নিয়ে পরীক্ষা চালাতে পছন্দ করেন না, তারা জন্যে কালো বা নীল রংয়েই ভরসা রাখতে পারেন।

 

 সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

 

 


Top