সাকিবদের হারিয়ে সিপিএলের ফাইনালে গায়ানা | daily-sun.com

সাকিবদের হারিয়ে সিপিএলের ফাইনালে গায়ানা

ডেইলি সান অনলাইন     ৪ আগস্ট, ২০১৬ ১৭:১২ টাprinter

সাকিবদের হারিয়ে সিপিএলের ফাইনালে গায়ানা

ব্যাট হাতে ৪ বলে ২ রান। ৪ ওভার বোলিংয়ে ২০ রান। উইকেট নেই। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) দারুণ গুরুত্বপূর্ণ প্লে-অফের লড়াইয়ে এই হলো সাকিব আল হাসানের পারফরম্যান্স। পরিস্থিতি বিবেচনায় বোলিংটা চমৎকার। একটি ক্যাচ না পড়লে আরো ভালো কিছু হতে পারতো। তবে সব মিলিয়ে সাকিবের মেধা ও ম্যাচের গুরুত্ব বিবেচনায় খুব উল্লেখ্য কিছু না। গায়ানা আ্যামাজন ওয়ারিয়র্সকে হারাতে আরো ভালো কিছু দরকার ছিল। পারেননি সাকিবরা। তাদের জ্যামাইকা তাল্লাওয়াহসকে ৪ উইকেটে হারিয়ে এবারের সিপিলের ফাইনালে উঠে গেল গায়ানা।

বাংলাদেশ সময়ে আজ বৃহস্পতিবার সকালে সেন্ট কিটসে হলো এই লড়াই। সাবেক চ্যাম্পিয়ন জ্যামাইকার ফাইনালে ওঠার আশা এখনো আছে। প্রথম কোয়ালিফায়ারে জেতা দলকে হারাতে পারলে ফাইনালে গায়ানারই মুখোমুখি হবে তারা। ফাইনালে ওঠার লড়াই ৮ উইকেটে ১৪৬ রান করেছিল জ্যামাইকা। জবাবে, ২ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটে ১৫০ রান তুলে ফাইনালে গায়ানা।

সাকিব বল হাতে পান ষষ্ঠ ওভারে। ৮ রান দিলেন। টানা ৪ ওভার করেছেন। আটকে রেখেছেন ব্যাটসম্যানদের। পরের ৩ ওভারে ৪ করে দিয়েছেন। এর মধ্যে ড্রপ হয়েছে ক্রিস লিনের মূল্যবান ক্যাচ। ৪৯ রান করে ইনিংসের সর্বোচ্চ স্কোরার তিনি পরে।

তবে ম্যাচের সেরা পাকিস্তানের সোহেল তানভির। আগে দুই উইকেট নিয়েছেন। আর শেষে ১৩ বলে ২১ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছেন। মেরেছেন দুটি ছক্কা। শেষ দুই বলে ৩ রান দরকার গায়ানার। তখন ছক্কা মেরে দিয়েছেন তানভির। তার আগে ১১৬ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে একটু চাপেই ছিল গায়ানা। তানভির ও অধিনায়ক রায়াদ এমরিট (অপরাজিত ১১) মিলে জয়ের বন্দরে নিয়েছেন দলকে।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে জ্যামাইকার শুরু ও শেষে ব্যাপক অমিল। ১৬ ওভারে ৪ উইকেটে ১২০ রান তুলেছিল তারা। কিন্তু শেষ ৪ ওভারে যখন রান বেশি হওয়ার কথা তখন ডুবল তারা। ৪ উইকেট হারাল। রান তুলল মাত্র ২৬। শেষের ওই চার আসামীর একজন সাকিব। মাত্র ২ রান করেই রায়াদ এমরিটের বলে স্টাম্পিংয়ের শিকার হয়েছেন। আন্দ্রে রাসেল (১১) বিদায় নেন সাকিবের আগের ওভারে। ৩ উইকেট নেওয়া এমরিট শেষে ২ উইকেট নিয়ে ক্ষতি করেছেন জ্যামাইকার।

জ্যামাইকার অধিনায়ক ক্রিস গেইলের হতাশা থাকতেই পারে। শাডউইক ওয়ালটন (১৬) ফিরলেন। এরপর কুমার সাঙ্গাকারার সাথে মিলে গেইল দলকে নিয়ে গেলেন ৭২ রান পর্যন্ত। ৩৬ বলে ৩৩ রান করেছেন গেইল। ইনিংস শেষে তার রানই সর্বোচ্চ। সাঙ্গাকারা ২০ ও রভম্যান পাওয়েল ২৩ রান করে যাওয়ার পর জ্যামাইকার ব্যাটিং হতাশার।


Top