আইএস সন্দেহে ক্রিকেটার! | daily-sun.com

আইএস সন্দেহে ক্রিকেটার!

ডেইলি সান অনলাইন     ৪ আগস্ট, ২০১৬ ১২:২৩ টাprinter

আইএস সন্দেহে ক্রিকেটার!

ইতালির অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব করেছেন তিনি। কিন্তু সেই তাকেই ইতালি থেকে পাকিস্তান পাঠিয়ে দেওয়া হলো আইএস সমর্থক ও সম্ভাব্য হামলার ষড়যন্ত্রকারী সন্দেহে। আফতাব ফারুক নামের ২৬ বছরের ক্রিকেটার সেই অভিযুক্ত।

ফারুককে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল একটি টেলি কথোপকথনের ভিত্তিতে। সেখানে তাকে কালাশনিকভ (একে ৪৭) কিংবা বোমা দিয়ে মিলানে অথবা উত্তর ইতালির বারগামো শহরে আক্রমণের পরিকল্পনা করতে শোনা যায়। তিনি বলছিলেন, ইউরোপিয়ানদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করা জরুরি। ইতালির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আনজেলিনো আলফানো বলেছেন, অভিযুক্ত ফারুক আইএস এর সমর্থক। তিনি সিরিয়ায় গিয়ে এই জঙ্গিদলের সাথে যোগ দেওয়ার পরিকল্পনা করছিলেন।

ভারপিও দি'আদ্দার স্থানীয়রা এই খবরে স্তম্ভিত। ওখানে পরিবারের সাথে সেই ১৩ বছর বয়স থেকে বসবাস করছিলেন ফারুক। ২০০৯ সালে স্পোর্টউইকে প্রকাশিত ফারুকের ছবি প্রকাশ করেছে ইতালির ক্রীড়া দৈনিক গ্যাজেত্তা দেল্লো স্পোর্ত। সেখানে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক হিসেবে ইতালির জার্সি পরে আছেন ফারুক।

মিলানো ক্রিকেট ক্লাবের প্রেসিডেন্ট ও ফারুকের ঘনিষ্ট ফাবিও মারাবিনিও এই খবরে স্তম্ভিত, "আমি বজ্রাহত। এখনো এটা বিশ্বাস করি না। ইসলামাবাদের বিমানে উঠিয়ে দেওয়ার আগে তার সাথে কথা হয়েছে। ও খুব ভীত। কারণ, পাকিস্তানের সাথে তার কোনো সম্পর্কই নেই।"

ক্রিকেটার ও মানুষ হিসেবে ফারুকের ইমেজ ছিল খুব পরিচ্ছন্ন। একটি ক্রীড়াসামগ্রীর দোকানে কাজ করতেন। অবসর সময়ে বন্ধুদের সাথে স্নোবোর্ডিং করতেন। আর স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে চালাতেন প্রতিবন্ধী মানুষদের বাস। মারাবিনি জানাচ্ছেন, "ও তো একটা মাছি মারার মতো লোকও না। খুবই আস্থাভাজন। পরোপকারে হাজির সব সময়।"

কিন্তু পুলিশের তদন্ত বলছে, গত কয়েক বছরে ফারুক অনেক বদলে গেছেন। বোরকা পরতে বাধ্য করতে স্ত্রীকে মারধর করতেন। বুধবার ইতালি থেকে ফারুককে বের করে দেওয়া হলো। তার পরিবার এই সিদ্ধান্তকে ইউরোপিয়ান কোর্ট অব হিউম্যান রাইটসে চ্যালেঞ্জ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।


Top