logo
Update : 2018-05-22 20:13:03
দিগম্বর হয়ে গায়ে কালি মেখে চুরি!

দিগম্বর হয়ে গায়ে কালি মেখে চুরি!

অনেকদিন ধরেই চুরি করে আসছিল জোসে। এই নিয়ে কমপক্ষে ২৫টি বাড়িতে সফল্যের সঙ্গে চুরি বিদ্যাকে সে কাজে লাগিয়েছে। ধরা পড়া তো দূরে থাক, কেউ টেরও পায়নি। রাতের অন্ধকারে নি:শব্দে কাজ করায় কারও টের পাওয়ার কথাও নয়। তার উপর সে বাড়তি সতর্কতা হিসেবে সারা শরীরে কালি মাখিয়ে রাখে। তাছাড়া শরীরে কোনো কাপড়ও রাখে না। শুধু আন্ডারওয়্যার’টি মুখের মধ্যে পেঁচিয়ে রাখে। যাতে গৃহস্থ ঘটনাচক্রে চুরির বিষয়টি টের পেলেও তাকে চিনতে না পারে।     সম্প্রতি ভারতের ‘দিগম্বর’ খ্যাত সেই প্রতিভাবান চোরকেই কিনা গ্রেফতার করেছে কেরালা রাজ্যের পুলিশ। তামিল নাড়ু’র ২৮ বছর বয়সী এডওইন জোসে’কে সবাই ‘দিগম্বর চোর’ বলেই জানে। শুধু সেই নয়, ওই অঞ্চলে চুরির পেশায় যারা জড়িত তারা তেল-কালি মেখেই চুরি করে থাকে।     তবে দিগম্বর জোসে’র চুরির স্টাইল একদম আলাদা। গ্রেফতারের পর পুলিশকে সে নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে। যা শুনে খোদ পুলিশই পড়েছে বিপাকে। জোসে যেদিন চুরি করবে বলে ঠিক করে, সেদিন প্রথমেই কারও বাইক নিজের মনে করে ব্যবহার করতে থাকে! অর্থাৎ চুরি করে। এরপর সেই চোরাই বাইক নিয়েই টার্গেট খুঁজতে সে বের হয়।     বাড়ি পছন্দ হলে সেই বাইক দূরে কোথাও ফেলে আসে সে। এরপর রাত গভীর হলে দিগম্বর হয়ে সে পুরো শরীরে কালি লেপে। সেই সময় শরীরে একটুকরো কাপড়ও রাখে না। শুধু কোমরের আন্ডারওয়্যার মুখে ভালো করে পেঁচিয়ে নেয়। চুরি সম্পন্ন হলে রাতের মধ্যেই এলাকার অন্য একটি বাইক চুরি করে সে পালিয়ে যেত। এভাবেই দীর্ঘদিন চুরির ব্যবসা চালিয়ে আসছিল জোসে।     তবে চুরির ক্যারিয়ারে কোনো ধরনের সহিংস পরিস্থিতিতে তাকে পড়তে হয়নি বলেই দাবি দিগম্বর চোরের। বরং তার দাবি, মাত্র একটি তালা ভাঙ্গার হাতিয়ার নিয়েই বাড়ির সিন্দুক, আলমারি থেকে গয়না, টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিয়ে সে পালিয়ে যেতো।     তবে পুলিশ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে জানিয়েছে, কখনও কখনও বাড়ির কর্ত্রী জেগে উঠে চিল্লা-চিল্লি করতে দেখতে তার মুখ বন্ধ করেও পালাবার অতীত অভিযোগ দিগম্বর চোরের বিরুদ্ধে আছে। পুলিশ আরও জানায়, জোসে মূলত কেরালা আর তামিল নাড়ু’র সীমানার ভেতরেই চুরি করত। তার বাসাও ওই এলাকাতেই।     সম্প্রতি এক বাসায় চুরির ঘটনার পর সিসি ক্যামেরার ছবি দেখে তাকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়। প্রেফতারের পর পুলিশের আদর সোহাগে সন্তুষ্ট হয়ে জোসে নিজেও সব কবুল করে নেয়!